বন্ধু শুধু কথায় নয়, কাজেও চাই

0

 

দেশের সংবাদ মাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর ও দুর্গাপূজা উপলক্ষে ইলিশ রফতানি প্রধান আলোচ্য বিষয়ে পরিণত হয়েছে। গতকাল সব মাধ্যমে এ দুটোই ছিল প্রধান খবর। খবর দুটির বিভিন্ন দিক আলোচিত হলেও প্রাধান্য পেয়েছিল একটি করে দিক। প্রধানমন্ত্রীর সফরে আলোচিত ছিল তাঁকে দেয়া ভারতের অভ্যর্থনা। দেশের প্রধানমন্ত্রীকে একজন প্রতিমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা দিতে দেখে গোটা দেশ যেন আহত হয়েছে। মনে হয়েছে, নূন্যতম একজন সিনিয়র মন্ত্রীকে দায়িত্ব দিলে হয়ত এমন প্রতিক্রিয়া হতো না। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম দেখলে স্পষ্ট হয় যে, যারা নিয়মিত প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা পছন্দ করেন তারাও বিষয়টি মেনে নিতে পারেননি। ভারতের প্রটোকল নিয়ম যেমনই থাক দুই পক্ষের দাবিকৃত সব থেকে প্রিয় বন্ধু রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রীর প্রতি সম্মানটা তেমন হওয়াই প্রত্যাশিত ছিল। তারা বলেছেন, ভারত কখনই প্রটোকল ভাঙেনি এমনটা তো নয়। অতীতের বহুবার তারা রাষ্ট্র বা ব্যক্তি বিশেষ প্রটোকল পরিবর্তন করেছে। অতীতে আমাদের এই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেই অভ্যর্থনা জানাতে প্রটোকল ভেঙে বিমান বন্দরে গিয়েছিলেন ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র দামোদর মোদি। সমালোচকবরা অভিযোগ করেছেন ভারতের তখন অনেক চাওয়ার ছিল, আর এখন তেমন কিছুই নেই। আছে দেয়ার পালা। সম্ভবত বাংলাদেশ তার পাওনা চাইতে পারে ভেবে বিড়ালটা আগেই মারার পরিকল্পনা। এমনটা আসলে বন্ধুত্বের নমুনা নয়। আমরা প্রকৃত বন্ধুত্বের সম্মান ও বিনিময় প্রত্যাশা করি। প্রত্যাশা করি গঙ্গার ন্যায্য হিস্যা ও তিস্তাসহ সব সমস্যার সম্মানজনক সমাধান। অপর দিকে ইলিশ নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ পেয়েছে। প্রটোকলের ক্ষোভ ইলিশে পড়েছে স্পষ্টই। বাণিজ্যিকভাবে ইলিশ পাঠানোর পরও কেউ মানতে পারছে না। নিজেদের বাজারে আকালের সময় ইলিশ রফতানি আসলে মানার কথা নয়। কুরবানিতে যারা গরু রফতানি করে না পূজোই তাদের ইলিশ দেয়া নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে অনেকে।
আমরা মনে করি, এসব ক্ষোভের প্রকাশ ঠিক নয়। কারণ প্রধানমন্ত্রীর এই সফরে ভারতের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী দলীয় নেতাসহ ব্যবসায়ীমহলের সাথে দু দেশের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে বৈঠক হবে এবং সেখানে তিনি যথাযথ সম্মান ও মর্যাদা পাবেন। তারপরও আমরা আশা করি, বন্ধু দুটি দেশ সব কিছুতেই সুসম্পর্ক বজায় রাখবেন। আমরা ভারতকে বন্ধু বলি। তাই প্রত্যাশা করি সমমর্যাদা ও উপযুক্ত সম্মান। আশা করি, ভারত তা দিতে কার্পণ্য করবে না।

Lab Scan