বনানী কবরস্থানে সমাহিত সাহাবুদ্দীন আহমেদ

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ রাজধানীর বনানী কবরস্থানে সাবেক রাষ্ট্রপতি ও প্রধান বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রবিবার দুপুর ১২টার দিকে তার দাফন সম্পন্ন হয়। সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র মোহাম্মদ সাইফুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন। সকাল ১০টার পর সুপ্রিম কোর্ট সংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহ মাঠে সাহাবুদ্দীন আহমদের দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় ইমামতি করেন সুপ্রিম কোর্ট জামে মসজিদের ইমাম আবু সালেহ মো. সলিমউল্লাহ। এতে অংশ নেন প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, সাবেক প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, আপিল ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি এবং সিনিয়র আইনজীবীরা। তার আগে বিচারপতি সাহাবুদ্দীনের মরদেহবাহী কফিনে রাষ্ট্রপতির পক্ষে তার সামরিক সচিব শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধান বিচারপতিসহ আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতিরা।
শনিবার বিকেলে জন্মভূমি নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার পাইকুড়া ইউনিয়নের পেমই গ্রামে নিজ বাড়ির প্রাঙ্গণে সাহাবুদ্দীন আহমদের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার সকাল ১০টার দিকে মৃত্যু হয় রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) সাহাবুদ্দীন আহমদের। তার বয়স হয়েছিল ৯২ বছর। কয়েক বছর ধরে সাবেক এই প্রধান বিচারপতি বার্ধক্যজনিত অসুস্থতায় ভুগছিলেন। নব্বইয়ের আন্দোলনে স্বৈরশাসক এইচ এম এরশাদ সরকারের পতনের পর রাষ্ট্রপ্রধানের দায়িত্বে আসেন তৎকালীন প্রধান বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ। পরবর্তীতে তার নেতৃত্বাধীন নির্দলীয় সরকারের অধীনে ১৯৯১ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয়। নির্বাচনের পর দেশের সংবিধানে পরিবর্তন এনে তিনি আবার প্রধান বিচারপতির পদে অধিষ্ঠিত হন। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর আবার রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন সাহাবুদ্দীন আহমদ। ২০০১ সালের ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত তিনি সেই দায়িত্ব পালন করেন। এরপর গুলশানের বাসভবনে অনেকটা নিভৃত জীবনযাপন করছিলেন সাহাবুদ্দীন আহমদ।

 

Lab Scan