বঞ্চনার শিকার গাবুরার নারী

0

শেখ আব্দুল হাকিম, শ্যামনগর (সাতক্ষীরা)॥ সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগরে সুন্দরবনের গা ঘেঁষা দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরা। ইউনিয়নটির চারপাশ নদী বেষ্টিত। এখানের অধিবাসীরা অধিকাংশই অসহায় ও হতদরিদ্র। জীবন-জীবিকার তাগিতে সকালে ডিঙ্গি নিয়ে ছুটতে হয় সুন্দবনের দিকে। ইউনিয়নের শতকরা ৭০ ভাগ নর-নারী নদ-নদী ও সুন্দরবনের ওপর নির্ভরশীল। ফলে বন্যপ্রাণীর হামলার শিকার হয়ে মৃত জেলে, বাওয়ালী, মৌয়ালীর সংখ্যা অন্যান্য ইউনিয়ন থেকে অনেক গুণ বেশি।
স্বামী মারা যাওয়ার পর অনেকের ঠাঁই হয়নি শ্বশুর বাড়িতে। সন্তান প্রতিপালন,অন্ন, বস্ত্র, বাস স্থানের সমস্যা নিয়ে দুর্বিসহ জীবনযাপন করছেন এসব ভাগ্যাহত নারীরা। তাদের ছেলে মেয়েদের পড়ালেখা শেখানোর কোন সুযোগ নেই। তাদের সন্তানরা মায়ের সাথে নদ-নদীতে যায় মাছ ধরতে। সম্প্রতি তারা জীবন- জীবিকার তাগিতে খোলপেটুয়া নদীতে রেনু ধরতে গেলে নৌ-পুলিশ, কোস্টগার্ডের বন বিভাগের সদস্যরা খোলপেটুয়া, কবাদক নদীতে হানা দিয়ে তাদের জাল নদী থেকে তুলে নিয়ে আসে। তাদের কাকুতি আর আহাজারি দেখেন অনেকে। জালগুলো ছেড়ে দিতে অনেকেই দাবি জানালেও তাতে কর্ণপাত করা হয়নি।
সুন্দরবনের ওপর চাপ কমাতে এতদাঞ্চলের বন নির্ভরশীল ব্যক্তিদের বিকল্প কর্মসংস্থানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন এনজিও । এসব বাঘ বিধবা নারীর বিধবা ভাতা দেয়ার জন্যে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান,এনজিও, সমাজসেবা কর্মকর্তা, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার সমন্বয়ে কাজ করছে বলে জানা যায়।

 

Lab Scan