ফেসবুকে প্রেম : প্রেমিকার সাথে গল্প করতে সোয়া লাখ টাকা গুণতে হল ফায়ারম্যানকে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ফেসবুকে সোনিয়া নামে এক যুবতীর সাথে প্রেম। অতঃপর প্রেমিকার সাথে নিভৃত সময় কাটাতে গিয়ে প্রেমিক বাদল মিয়াকে অপহরণ করে নিয়ে যায় সন্ত্রাসী চক্র। শেষমেষ এক লাখ ২৮ হাজার টাকা দিয়ে রক্ষা পেয়েছেন ফায়ার সার্ভিসে কর্মরত ওই ব্যক্তি। তার একটি দামি মোবাইল ফোন সেটও কেড়ে নিয়েছিলো সন্ত্রাসী চক্র। তবে পুলিশ মোবাইল ফোন সেটটি উদ্ধার করলেও সন্ত্রাসীদের আটক করতে পারেনি। এ ঘটনাটি ঘটেছে যশোর শহরের শংকরপুর পশু হাসপাতাল এলাকায়।
একাধিক সূত্রে জানা যায়, সোনিয়ার বাড়ি যশোর সদর উপজেলার শানতলা এলাকায়। তার সাথে ফেসবুকে প্রেমজ সম্পর্ক গড়ে ওঠে বাদল মিয়া নামে ওই ব্যক্তির। তিনি অন্য একটি জেলায় ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সে চাকরি করেন। প্রেমিকার ডাকে সাড়া দিতে তিনদিন আগে তিনি যশোরে ছুটে আসেন। এরপর সোনিয়া তাকে নিয়ে যান শহরের শংকরপুর পশু হাসপাতাল এলাকায় বান্ধবী পপির বাড়িতে। পপি ওই এলাকার জনৈক এবাদ আলীর মেয়ে। কিন্তু বাদল মিয়া প্রেমিকা সোনিয়াকে নিয়ে সেখানে গল্প করার সময় বিষয়টি টের পেয়ে যায় স্থানীয় একটি সন্ত্রাসী চক্র। ফলে তারা সেখানে গিয়ে বাদল মিয়াকে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। এরপর তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে সন্ত্রাসীরা তার কাছ থেকে এক লাখ ২৮ হাজার টাকা আদায় করে। প্রাণ বাঁচাতে বাদল মিয়া স্বজনদের কাছ থেকে পরদিন বিকাশের মাধ্যমে সন্ত্রাসীদের জন্য টাকা এনে দেন। এই টাকা পেয়ে সন্ত্রাসীরা কাউকে কোন কিছু না বলার হুমকি দিয়ে ছেড়ে দেয়।
সূত্র জানায়, সন্ত্রাসীরা বাদল মিয়ার কাছ থেকে একটি দামি মোবাইল ফোন সেট কেড়ে নিয়েছিলো। যা পরে পুলিশ তার প্রেমিকা সোনিয়ার কাছ থেকে উদ্ধার করে। ওই ঘটনার সাথে সোনিয়ার বান্ধবী পপির যোগসূত্র থাকতে পারে। কিন্তু ঘটনার পর থেকে পপি পলাতক রয়েছে। তবে পুলিশ তার পিতা এবাদ আলীকে ধরে আনলেও ঘটনার সাথে তার কোন সম্পৃক্ততা না পাওয়ায় তাকে ছেড়ে দেয়। সূত্র জানায়, সন্ত্রাসীদের একজন রেলগেট-রায়পাড়ার শংকর নামে বিকাশের এক এজেন্টের মাধ্যমে নিজ অ্যাকাউন্ট থেকে ৪০ হাজার টাকা উত্তোলন করে। ওই অ্যাকাউন্টে বাদল মিয়ার কাছ থেকে এক লাখ ২৮ হাজার টাকা নিয়েছিলো সন্ত্রাসী চক্র।
এদিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার সকালে শংকর নামে বিকাশের ওই এজেন্টকে শনাক্ত করে পুলিশ। এ সময় শংকর পুলিশের কাছে স্বীকার করে যে, ৪০ হাজার টাকা তার পরিচিত এক যুবক উত্তোলন করেছিলো। তবে টাকা উত্তোলন করেছিলো তার পরিচয় উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। সূত্র জানায়, বাদল মিয়া ওই ব্যক্তিকে সন্ত্রাসীরা অপহরণ ও এক লাখ ৪০ হাজার টাকা মুক্তিপণ আদায় ঘটনা জানাজানি হওয়ায় শংকরপুর পশু হাসপাতাল এলাকায় এ বিষয়টি ব্যাপক আলোচিত হচ্ছে।

ভাগ