প্রতিবন্ধী আল-আমিনের মহত উদ্যোগ

0

কপিলমুনি (খুলনা) সংবাদদাতা ॥ মায়ের কোল থেকে নেমে হামাগুড়ি দিয়ে চলতে শেখা আল-আমিনকে ৩৫ বছর বয়সেও চলতে হয় হামাগুড়িতেই। পার্শ্ববর্তী হরিঢালী ইউনিয়নের গলডাঙ্গা গ্রামের আকসেদ সরদারে ছেলে শারীরিক সীমাবদ্ধতা নিয়ে বেড়ে ওঠা আল-আমিন, মা রিজিয়ার আদরের সন্তান। ৬ সদস্যের অভাবের সংসারে নানা প্রতিবন্ধকতায় আল-আমিন আজ ভিখারী। অন্যের দানে সংসার চলে তার। বাড়ির পাশে মসজিদে ফজরের নামাজ আদায় করে জীবিকার টানে ছুটে চলেন আল-আমিন। দিনের বাকিটা সময় কাটান কপিলমুনি বাজারের অলিগলিতে। শত ব্যবস্তার মাঝে আল- আমিন ভোলেন না পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায়ের কথা। নামাজ আদায়ে হামাগুড়ি দিয়ে চলে কপিলমুনি বায়তুস সালাম কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের দিকে। আল-আমিন নিয়মিত মুসল্লি এ মসজিদের। এই মসজেদের নির্মাণ কাজে এক বস্তা
সিমেন্ট দান করেছেন তিনি । তার এই মহত উদ্যোগ সোশ্যাল মিডিয়ার সুবাদে গন্ডি পেরিয়ে আলোচিত হচ্ছে দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও। আল-আমিন এ প্রতিবেদককে সৃষ্টিকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে বলেন, তিনি আমাকে সৃষ্টির সেরা মানুষ হিসেবে সৃষ্টি করেছেন। তার দয়ায় সেই মানুষের সাহায্যে আমার পরিবারের জীবিকা নির্বাহ হয়। সমাজের বিত্তবানদের কাছে কপিলমুনি মসজিদের নির্মাণ কাজে সহযোগিতা কামনা করছেন প্রতিবন্ধী আল-আমিন।

Lab Scan