পেঁয়াজের কেজি ২৫০!

লোকসমাজ ডেস্ক ॥ ভারত রফতানি বন্ধ করে দেওয়ার পর থেকে গত কয়েক মাস যাবৎ বাংলাদেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম হু-হু করে বাড়ছে। শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) রাজধানীর বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, খুচরা বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৫০ টাকায়। আর গত চার দিনে কেজিপ্রতি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৮০ থেকে ১০০ টাকা। পাশাপাশি অন্যান্য শাকসবজির দামও ঊর্ধ্বমুখী দেখা গেছে। শুক্রবার রাজধানীর খিলগাঁও রেলগেট এলাকায় সিটি করপোরেশনের কাঁচাবাজারে দেখা গেছে, এক কেজি পেঁয়াজ ২৫০-২৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ওই বাজারের বিক্রেতা জামাল উদ্দিন বলেন, ‘প্রতি কেজি পেঁয়াজ কারওয়ান বাজার থেকে ২৪০ টাকায় কিনে এনেছি। এরপর ভ্যানভাড়া, দোকান ও কর্মচারী খরচ রয়েছে। এসবের পর কত টাকায় বিক্রি করলে লাভ থাকে?’
অন্যদিকে, কারওয়ান বাজারে গিয়ে দেখা গেছে, প্রতি পাল্লা (পাঁচ কেজি) পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে এক হাজার ২০০ টাকায়। সেই হিসাবে প্রতি কেজির দাম ২৪০ টাকা। এই পেঁয়াজ খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ২৬০ টাকায়। এরপরেও দাম আরও বাড়বে বলে ধারণা করছেন ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ীরা জানান, গত বুধবার পেঁয়াজের দাম ছিল ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা। সেখান থেকে পরের দিন এক লাফে বেড়ে হয় ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা। বৃহস্পতিবার সেই পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ২০০ থেকে ২১০ টাকায়। শুক্রবার তা বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ২৬০ টাকায়। এর আগে কখনও দেশের বাজারে এত দামে পেঁয়াজ বিক্রি হয়নি। শনিবার (১৬ নভেম্বর) দাম আরও বাড়তে পারে।
কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ী আরাফাত হোসেন বলেন, ‘পেঁয়াজ কম। আমদানি নেই। প্রতি পাল্লা (পাঁচ কেজি) এক হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি করছি। এর কমে বিক্রি করা যাচ্ছে না।’ একই অবস্থা দেখা গেছে মালিবাগ কাঁচাবাজারেও। সেখানেও একই দামে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। এই মার্কেটের খুচরা বিক্রেতা আমির হোসেন বলেন, ‘তিন দিন আগের চেয়ে আজ প্রতি কেজিতে কমপক্ষে ১০০ টাকা বেড়েছে। এখন ২৬০ টাকায় বিক্রি করছি। ২৫০ টাকায় বিক্রি করলে আমাদের পোষাবে না।’ এদিকে সবজির বাজারও ছিল চড়া। খিলগাঁও কাঁচাবাজারে দেখা যায়, প্রতি কেজি শিম ৭০ টাকা, টমেটো ১০০-১১০ টাকা, বেগুন ৭০ টাকা, গাজর ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া ঝিঙে ৬০-৭০ টাকা ও নতুন আলু ১০০ টাকা, বাঁধাকপি প্রতি পিস ৪০ টাকা, মুলা ৪০-৪৫ টাকা, ঢেঁড়স ৬০-৭০ টাকা ও কাঁচামরিচ ২০০ গ্রাম ১৫ থেকে ২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে এসবের মধ্যে শসার দাম অন্যদিনের তুলনায় ছিল অনেক বেশি। প্রতি কেজি শসা বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১৩০ টাকায়।

ভাগ