পাইকগাছায় চারা বিক্রি করে ২শ কোটি টাকা আয়ের লক্ষ্যমাত্রা

0

জিএম মিজানুর রহমান, পাইকগাছা (খুলনা)॥ খুলনার পাইকগাছায় ১২ শতাধিক নার্সারিতে ক্যান্সার প্রতিরোধক করোসলের চারাসহ বিভিন্ন জাতের কলমের চারা উৎপাদিত হচ্ছে। যা বিক্রি করে চলতি বছর ২শ কোটির অধিক টাকা আয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছেন নার্সারি মালিকরা।
উপজেলার গদাইপুর,কপিলমুমি, ও হরিঢালী ইউনিয়নে ১২ শতাধিক নার্সারি গড়ে উঠেছে । যার জমির পরিমাণ ৬-৭’শ বিঘা। লাভজনক ব্যবসা হওয়ায় বাড়ছে নার্সারির সংখ্যা । চলতি বছর রাড়ুলী, চাঁদখালী ইউনিয়নে অনেকেই এ ব্যাবসা শুরু করেছে বলে নার্সারি মালিক মিজানুর রহমান জানান। নার্সারি করে ১৫ শর বেশি পরিবার স্বাবলম্বী হয়েছে বলে নার্সারি মালিক সমিতির সভাপতি শেখ জিয়াউর রহমান জানান। তিনি বলেন, নার্সারিতে ২শ প্রকারের অধিক চারা উৎপাদিত হয়। যার মধ্যে ফলদ,বনজ, ওষধি ও ফুলের কলম বা চারা রয়েছে।
নার্সারি মালিক আখতারুজ্জামান, রোসনারা বেগম ও অশোক পাল জানা, গত বছর ১শ ৮০ কোটি টাকার মত চারা বিক্রি হয়েছে। চলতি বছর ২ শ কোটি টাকার বেশি ছাড়িয়ে যাবে বলে তাদের ধারণা। আষাঢ় থেকে কার্তিক মাস পর্যন্ত প্রতিদিন ৫ থেকে ১৫ টি ট্রাক ভর্তি চারা দেশের বিভিন্ন জেলাতে সরবরাহ হয়ে থাকে। এছাড়া এ বছর ওনলাইনে প্রচুর চারা বিক্রি হচ্ছে। বৈধ-অবৈধ পথে এসব চারা ভারতে যাচ্ছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম বলেন,আমি বিভিন্ন সময় নার্সারি পরিদর্শন করে থাকি। খামারীদের উন্নত পদ্ধতিতে চারা উৎপাদন, লবণাক্ততা প্রতিরোধী বিভিন্ন ধরনের ফলদ ও সবজি চারা উৎপাদন,পোকামাকড় আক্রমণ থেকে মুক্তির পরমার্শ প্রদান করে থাকি।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মমতাজ বেগম বলেন,পাইকগাছা উপজেলায় গাছের চারার নার্সারি ব্যবসা করে শ শ লোক প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়া এ এলাকার গাছের চারা উন্নতমানের হওয়ায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এর রয়েছে ব্যাপক চাহিদা।

Lab Scan