নড়াইলে গরু চোর সন্দেহে দুই জনকে পিটিয়ে হত্যা

0

নড়াইল সংবাদদাতা॥ নড়াইল সদর উপজেলার বীড়গ্রামে গরু চোর সন্দেহে দুব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার দিবাগত সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ খবর পেয়ে সকাল ৯টার দিকে নড়াইল-গোবরা সড়কের পল্লী বিদ্যুৎ স্টেশনের উত্তর পাশের শস্য ক্ষেতের মধ্য থেকে এবং দক্ষিণ পাশের মেহগনি বাগানের মধ্যে পড়ে থাকা লাশ দুটি উদ্ধার করে।
নিহত একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তিনি বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট উপজেলার দাড়িয়া বারইডাঙ্গা গ্রামের গফুর শেখের ছেলে আসাদুল শেখ (৩৬)। অপর ব্যক্তির নাম-ঠিকানা জানা যায়নি। নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহমুদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গত এক মাসের মধ্যে বীড়গ্রামের সুশেন বিশ্বাসের ১টি, উজিরপুর গ্রামের রাম বিশ্বাসের ৫টি গরু চুরি করে নিয়ে যায় চোরেরা। ওই ঘটনার পর থেকে দু’গ্রামের লোকজন গরু চোর ধরতে নিয়মিত পাহারা দিত। রবিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে বীড়গ্রামের রেবো বিশ্বাসের বাড়ি চোরেরা গরু চুরি করতে গেলে বাড়ির মালিক চোর চোর বলে চিৎকার করতে থাকলে আশপাশের লোকজন সংঘবদ্ধ হয়ে চোরদের ধাওয়া করে। গ্রামবাসীর ধাওয়ায় চোর দলের ৩-৪ জন পালিয়ে যায়।এ সময় গরু চোর সন্দেহে আসাদুল শেখ ও অজ্ঞাত ব্যক্তিকে ধরে লোকজন গণপিটুনি দিয়ে নড়াইল-গোবরা সড়কের পল্লী বিদ্যুৎ স্টেশনের উত্তর ও দক্ষিণ পাশে ফেলে রেখে যায়। ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়। স্থানীয় কলোড়া ইউপি চেয়ারম্যান আশীষ কুমার বিশ্বাস ও একাধিক ব্যক্তি জানান, ইউনিয়নের বীড়গ্রামসহ আশেপাশের গ্রামে দিনের বেলায় ফেরিওয়ালা সেজে এরা কম্বল, থালা-বাটি ও অন্যান্য মালামাল বিক্রি করে খোঁজখবর নিয়ে রাতের বেলা চুরি কাজে লিপ্ত হতো। বীড়গ্রামের সুশেন বিশ্বাসের ১টি,উজিরপুর গ্রামের রাম বিশ্বাসের ৫টি গরু চুরি করে নিয়ে যাওয়ার পর থেকে গ্রামের লোকজন পাহারা দেয়া শুরু করে। ওসি মাহমুদুর রহমান আরো জানান,এ ব্যাপারে সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

 

Lab Scan