নির্বাচনের স্বচ্ছতা নিয়ে কোনও সংশয় নেই যুক্তরাষ্ট্রের

ভারতীয় নির্বাচনের স্বচ্ছতা নিয়ে কোনও সংশয় নেই যুক্তরাষ্ট্রের। দেশটির নির্বাচন ব্যবস্থার সততা ও পরিচ্ছন্নতা সম্পর্কে আমেরিকার আত্মবিশ্বাস রয়েছে। ফলে যারাই জিতুক তাদের সঙ্গে কাজ করতে আমরা আগ্রহী। অবশ্যই বিজয়ীদের সঙ্গে কাজ করবো আমরা। বুধবার এমনটাই মন্তব্য করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র মর্গ্যান অর্টাগুস। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।
প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের নির্বাচন কমিশন শক্তিশালী ও স্বাধীন হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র নির্বাচনে কোনও পর্যবেক্ষকও পাঠায়নি। মর্গ্যান অর্টাগুস বলেন, আমাদের সম্পর্ক অত্যন্ত মজবুত। বহু ইস্যুতে দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বহুবার বলেছেন, আমরা একটি সত্যিকারের কৌশলগত সঙ্গী হিসেবে ভারতকে পেয়েছি। মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের এ মুখপাত্র বলেন, ‘কেউ আমাকে জানিয়েছে ভারতের নির্বাচন প্রক্রিয়া মানব ইতিহাসে সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া। আমার মনে হয়, সারা দুনিয়ায় যা যা ঘটছে তা থেকে আমরা ভারতেও কিছুটা দৃষ্টি দিতে পারি এবং তাদের প্রশংসা করতে পারি।’
এদিকে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর খবর অনুযায়ী বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট তিন শতাধিক আসনে এগিয়ে রয়েছে। মহারাষ্ট্র, কর্নাটক, উত্তর প্রদেশ, বিহার, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, দিল্লি আর মুম্বাইয়ে এখন পর্যন্ত গণনা থেকে ধারণা করা হচ্ছে, দ্বিতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসছে বিজেপি। সাত দফায় অনুষ্ঠিত লোকসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে ১৯ মে। ২৩ মে ঘোষণা করা হবে ফল। ১৪টি বুথফেরত জরিপের মধ্যে ১২টি-ই আভাস দিয়েছে আবারও বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে সরকার গড়তে চলেছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। জরিপগুলোতে ওই জোটের ২৮২ থেকে ৩৬৫টি আসন পাওয়ার আভাস মিলেছে। ‌তবে বুথফেরত জরিপকে বিজেপিপন্থী স্টাবলিশমেন্টের কারসাজি হিসেবে দেখছে বিরোধীরা। তাদের কেউ কেউ দাবি করেছে, ইভিএম কারসাজির মধ্য দিয়ে ফল বদলে দিতে পারে ক্ষমতাসীনরা। সেই ফল জায়েজ করতে এই জরিপকে উদাহরণ হিসেবে হাজির করতে পারে তারা। এমন সংশয়ের মধ্যে বৃহস্পতিবার (২৩ মে) কড়া নিরাপত্তায় লোকসভার পাঁচ শতাধিক আসনে ভোটগণনা চলমান রয়েছে। লোকসভার ৫৪৫টি আসনের মধ্যে এবার ৫৪২টি আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নিউজ এইটিন প্রকাশিত ভোটের লাইভ ফল থেকে দেখা যায়, এককভাবে বিজেপি এগিয়ে রয়েছে ২৮৭টি আসনে। জোটগতভাবে তারা এগিয়ে রয়েছে ৩৪১টি আসনে। কংগ্রেস এককভাবে এগিয়ে রয়েছে ৫৪টি আসনে। আর জোটগতভাবে তারা এগিয়ে রয়েছে ৯৩টি আসনে। আর অন্য দলগুলো ১০৮টি আসনে এগিয়ে রয়েছে।

ভাগ