ধানের দর না পেয়ে আগাম আলু চাষ চৌগাছায়

স্টাফ রিপোর্টার, চৌগাছা (যশোর) ॥ ধান চাষ করে খরচের টাকা উঠছে না। সবজি চাষ করেও মধ্য স্বত্বভোগীদের দৌরাত্ম্যে কাঙ্খিত মূল্য থেকে হচ্ছেন বঞ্চিত। তাই উপজেলার কৃষকরা কিছুটা লাভের আশায় একটু আগেভাগেই আলু চাষ শুরু করেছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ভাল ফলনের আশা করছেন কৃষকরা।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে উপজেলায় ৩০৫ হেক্টর জমিতে আলু চাষ করা হয়েছে। আলু চাষের এখন ভরা মৌসুম তাই শেষ পর্যন্ত চাষ আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এ অঞ্চলের মাটির গুণাগুণ ভেদে মূলত কাটিনাল ও ডাইমন্ড দুই জাতের আলু চাষ হয়। আলু চাষে কৃষককে উদ্বুদ্ধ করতে কৃষি অফিস সর্বদা কাজ করে যাচ্ছে। সোমবার উপজেলার সিংহঝুলী ও চৌগাছা সদর উপজেলার বিভিন্ন মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, কৃষকরা আলু বপন এবং পূর্বে বপনকৃত আলু ক্ষেত পরিচর্যায় কাজ করে যাচ্ছেন। এ সময় কথা হয় উপজেলার জামলতা গ্রামের আমানত আলীর ছেলে কৃষক শাহাদৎ হোসেনের সাথে। তিনি জানান, চলতি আমন মৌসুমে ৩ বিঘা জমিতে আমন ধানের চাষ করেছিলাম। ইতোমধ্যে ধান কাটার কাজ শেষ করেছি। কিন্তু বর্তমান বাজার দরের কারণে ধান বিক্রি না করে বাড়িতে জমা রেখেছি। তিনি বলেন, প্রতিবছর আলু চাষ করি। এ বছর তিনি ২ বিঘা জমিতে ডাইমন্ড সাদা জাতের আলুর চাষ করেছেন। বপনকৃত আলু থেকে চারা বের হতে শুরু করেছে। এখন চলছে ক্ষেত পরিচর্যার কাজ। যদি কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা না দেয় তাহলে আলুর বাম্পার ফলনের আশা করা হচ্ছে। তবে দাম নিয়ে কৃষকের মাঝে শঙ্কা বিরাজ করছে।
উপজেলার সদর ইউনিয়নের লস্কারপুর গ্রামের কৃষক দাউদ হোসেন আমন ধানের লোকসান কাটিয়ে উঠতে বেশ আগেভাগেই আলু চাষ করেছেন। কিন্তু আলু উঠার পর বাজার দর কেমন থাকে তা নিয়ে বেশ শংকিত তিনি। কৃষক দাউদ হোসেনের মত ওই মাঠে সোলাইমান হোসেন ১ বিঘা, হাবিবর রহমান ১ বিঘা, শহিদুল ইসলাম ১ বিঘা, মোস্তাফিজুর রহমান ২ বিঘা, ওলিয়ার রহমান ১ বিঘা জমিতে আলু চাষ করেছেন। অনেকের আলু থেকে চারা বের হতে শুরু করেছে, আবার অনেক চাষির ক্ষেত আলু গাছে সবুজ হয়ে উঠেছে। কৃষকরা বলেন, মাথার ঘাম পায়ে ফেলে ফসল উৎপাদন করতে হয়। কৃষকের উৎপাদিত ফসল বাজারে উঠার সাথে সাথে বাজার দরে ধস নামে। এক শ্রেণির অসাধু ব্যক্তি আমাদের উৎপাদিত পণ্যের মাধ্যমে পকেট ভরে বাড়িতে ফেরে, আর লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়ে আমাদেরকে আবার মাঠে ফিরতে হয়। হউপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রইচ উদ্দিন বলেন, আলু একটি লাভজনক ফসল। বাজার দর ভাল থাকলে কৃষক আলু চাষে বেশ লাভবান হয়। আলু ক্ষেতে মূলত লেট ব্লাইট ও আরলি ব্লাইট রোগ দেখা দেয়। এই রোগ যাতে জমিতে দেখা না দেয় সে জন্য কৃষি অফিস সকল চাষিকে সতর্ক করেন। বিচ্ছিন্নভাবে দু’একটি জমিতে এই রোগ দেখা দিলে তা প্রতিকারে কৃষি অফিস কৃষককে সহযোগিতা প্রদান করে।

ভাগ