‘ধাওয়ান আহাম্মক ও বিরক্তিকর মানুষ’

লোকসমাজ ডেস্ক॥ ভারতের শক্তিশালী ও বিশাল ব্যাটিং লাইনআপের গোড়াপত্তন করতে আসেন দুই সেরা ওপেনার রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান। তাদের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা জুটিও এরা। ওপেনিংয়ে এই দুই ব্যাটসম্যান ইতিমধ্যে ওয়ানডে ইতিহাসের চতুর্থ সেরা জায়গা দখল করে নিয়েছে। ১০৭ ইনিংসে এই ওপেনিং জুটি সংগ্রহ করেছেন ৪,৮০২ রান। নিজেদের মধ্যে মাঠের রসায়ন ঠিক এতটাই মজবুত তাদের। অথচ দুইজনের ওপেনিং জুটি শুরুর সময়কালে বোঝাপড়া বলতে গেলে ছিলই না তাদের মাঝে। এমন তথ্য দিলেন রোহিত শর্মা। অজি ক্রিকেটার ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে ইনস্টাগ্রাম লাইভে এসে রহিত আরও জানান, মাঠে বিরক্তিকর কাজ করে বসেন ধাওয়ান। এমনকি মাঝে মাঝে আহাম্মকের মতো কাজ করেও বসেন।
সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ওয়ার্নার ও ধাওয়ান একসঙ্গে ওপেনিং করেন। সে সুবাদে ধাওয়ানের সম্পর্কে ধারনা আছে ওয়ার্নারের। তাই রোহিতের কাছে ওয়ার্নার প্রশ্ন করেন, ‘ওপেনিংয়ে নেমে ধাওয়ান কি কখনো তাকে প্রথম বল মোকাবিলা করতে বলেন কি না? এর উত্তরে রোহিত তাঁর ওপেনিং পার্টনারকে নিয়ে বলেন, ‘আমি আর কি বলব। সে (ধাওয়ান) তো একটা আহাম্মক। সে প্রথম বল মোকাবেলা করতে চায় না কখনই। স্পিনারকে খেলতে রাজি, কিন্তু পেস বোলার খেলবে না।’
নিজেই একটা অভিজ্ঞতা শেয়ার করার মাধ্যমে বিষয়টি ব্যাখ্যা করে রোহিত বলেন, ‘আমার ২০১৩ সালের কথা মনে আছে, যখন আমি সীমিত ওভারে ভারতের হয়ে ওপেনিং শুরু করেছিলাম। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে আমার দ্বিতীয় ইনিংস ছিল সেটা। আমরা দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলছিলাম, যে দলে মরনে মরকেল, ডেল স্টেইনের মতো পেসার। আমি নতুন বলে কখনও তাদের খেলিনি। তাই শিখরকে বললাম, তুমি স্ট্রাইক নাও। সে বলে ওঠে-না, রোহিত। তুমি তো অনেকদিন ধরে খেলছো। এটা প্রথম ওভার, আমি পারব না। তুমিই করো।’ যদিও এখন আর আগের মতো সমস্যা হয় না জানিয়ে রোহিত পরে আরও যোগ করেন, ‘শিখরের সঙ্গে সেটা ছিল আমার প্রথম অভিজ্ঞতা। তবে এখন আমরা একে অপরের সঙ্গে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।’ তবে এরপরে ধাওয়ানকে নিয়ে আরও একটা মজার তথ্য শেয়ার করেন রোহিত। ধাওয়ানকে ‘বিরক্তিকর’ একজন মানুষ বলে রোহিত যোগ করেন, ‘ ‘মাঝেমধ্যে সে খুব বিরক্তিকর। খেলার মাঝে হয়তো আমি একটা পরিকল্পনা করলাম-এই বোলার এটা করছে, তার সঙ্গে এভাবে খেলতে হবে। সে পাঁচ সেকেন্ড পরেই এসে বলবে-আচ্ছা কি যেন বলেছিলে? ম্যাচের মধ্যখানে আপনি যখন অনেক চাপের মধ্যে, তখন একজন এমন করলে কেমন লাগে!’

ভাগ