দ্বিতীয় সারির শ্রীলঙ্কা ইতিহাস গড়লো লাহোরে

নিরাপত্তার অজুহাতে পাকিস্তান সফর থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার ১০ সিনিয়র ক্রিকেটার। বলতে গেলে দ্বিতীয় সারির দল নিয়েই পাকিস্তানের বিপক্ষে লড়ছে লঙ্কানরা। ওয়ানডে সিরিজে ২-০ ব্যবধানে পরাজিত হলেও তারা দাপট দেখালো টি-টোয়েন্টিতে। সোমবার লাহোরে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তানকে ৩৫ রানে হারিয়ে দাসুন শানাকার দল গড়লো ইতিহাস। এ জয়ের মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের স্বাদ নিলো শ্রীলঙ্কা। এর আগে ৬টি দ্বিপক্ষীয় সিরিজে পাকিস্তানের মুখোমুখি হয়েছিল দু’দল। এর মধ্যে কেবল দুটিতে ড্র করতে পেরেছিল লঙ্কানরা। পাকিস্তান বর্তমানে টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর দল।
যেখানে শ্রীলঙ্কা রয়েছে সপ্তম স্থানে। লঙ্কান অধিনায়ক শানাকা সিরিজ জয়ের কৃতিত্বটা দিচ্ছেন সতীর্থদের। তিনি বলেন, ‘আমরা কোয়ালিটি ক্রিকেট খেলেছি বলেই জিতেছি।’ অন্যদিকে পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ বলেন, ‘আমরা ভালো খেলিনি। শ্রীলঙ্কাকে অভিনন্দন। ব্যাটে-বলে ওরা আমাদের চেয়ে ভালো দল ছিল। জয়টা ওদেরই প্রাপ্য।’
সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তানকে ৬৫ রানের বড় ব্যবধানে হারায় শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় ম্যাচে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৮২/৬ তুলে শ্রীলঙ্কা। সর্বোচ্চ ৭৭ রান করেন অভিষিক্ত ক্রিকেটার ভানুকা রাজাপাকসে। ৪৮ বলের ইনিংসটিতে ছিল ৪টি বাউন্ডারি ও ৬টি ছক্কার মার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৪ শেহান জয়াসুরিয়ার। শেষ দিকে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন দাসুন শানাকা। ১৫ বলে অপরাজিত ২৭ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। পাকিস্তানের হয়ে একটি করে উইকেট নেন ইমাদ ওয়াসিম, ওয়াহাব রিয়াজ ও শাদাব খান। ১৮৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৯ ওভারে ১৪৭ রানে অলআউট হয় পাকিস্তান। ইমাদ ওয়াসিম ছাড়া কেউই ব্যাট হাতে বড় ইনিংস খেলতে পারেননি। ২৯ বলে ৮ চারে ৪৭ রান করেন এই অলরাউন্ডার। শ্রীলঙ্কার হয়ে ২৫ রানে ৪ উইকেট নেন পেসার নুয়ান প্রদীপ। এছাড়া ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা নেন ৩ উইকেট। ম্যাচসেরা হন অভিষিক্ত ভানুকা রাজাপাকসে।
হোয়াটওয়াশ এড়াতে নামছে পাকিস্তান ২০১৫ ও ২০১৮ সালে দুবার শ্রীলঙ্কাকে টি-টোয়েন্টিতে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা দেয় পাকিস্তান। সেই পাকিস্তানই এখন লঙ্কানদেতর বিপক্ষে ধবলধোলাইয়ের শঙ্কায়। আজ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে হোয়াইটওয়াশ এড়াতে মাঠে নামছে পাকিস্তান। এ ম্যাচটিও হবে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে। এ ম্যাচ সামনে রেখে পাকিস্তানের কোচ মিসবাহ উল হক বলেন, ‘প্রথম দুই ম্যাচে আমরা তিন বিভাগেই খারাপ করেছি। দু-একজন নয় আমাদের অন্য ব্যাটসম্যানদেরও দায়িত্ব নিতে হবে।’

ভাগ