দুই যুগ পর আজ যশোর মহিলা লীগের সম্মেলন : তৃণমূলের মতামতের গুরুত্ব চান নীরা, নির্বাচন চান না লাইজু

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দীর্ঘ প্রায় দুই যুগ পর আজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে যশোর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন। সকাল ১০টায় যশোর জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এই সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য সাফিয়া খাতুন। প্রধান অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য পীযূষ কান্তি ভট্টাচার্য। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে গুরুত্বপূর্ণ পদে পছন্দের নেতৃত্ব আনতে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের দু পক্ষই তৎপর হয়ে উঠেছে।
১৯৯৭ সালের ২৭ অক্টোবর সম্মেলনের মাধ্যমে যশোর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। সম্প্রতি আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনগুলোকে তৃণমূল পর্যায় থেকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটি। বিশেষ করে মেয়াদ উত্তীর্ণ সকল কমিটি ভেঙে দিয়ে সম্মেলনের মাধ্যমে দল পুনর্গঠনের উদ্যোগ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এরই অংশ হিসেবে যশোর জেলা মহিলা লীগের আজ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
ত্রিবার্ষিক সম্মেলন ঘিরে সভাপতি ও সম্পাদক পদে আসার জন্য ৮ জন নারী নেত্রী প্রস্তুতি নিয়েছেন। এর মধ্যে সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি ও সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নূরজাহান ইসলাম নীরা, প্রচার সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য লাইজু জামান, শহর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহফুজা খাতুন গিনি এবং জেলা যুব মহিলা লীগের যুগ্ম সম্পাদক নাছিমা আক্তার জলি। সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি জোসনা আরা বেগম মিলি, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সদস্য ও জেলা পরিষদ সদস্য হাজেরা পারভীন, শহর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেহেনা পারভীন এবং তিন নম্বর ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামী লীগ সভাপতি রিনি বেগম।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, মহিলা লীগের সম্মেলনকে ঘিরে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের নেতৃত্ব বাছাই নিয়ে যশোর আওয়ামী লীগের বিবদমান দুই পক্ষই তৎপর রয়েছে। বিশেষ করে বর্তমান সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ গ্রুপ ও দলের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার গ্রুপের লোকজন মরিয়া হয়ে উঠেছেন। আওয়ামী লীগের একাধিক নেতার সাথে কথা বলে জানা গেছে, সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য একাধিক নেতৃত্ব প্রত্যাশীর নাম শোনা গেলেও মূলত এদের মধ্যে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় টিকে থাকবেন দুই পদে মোট চারজন। এরা হলেন এমপি কাজী নাবিল আহমেদ গ্রুপের পক্ষে সভাপতি পদে লাইজু জামান ও সাধারণ সম্পাদক পদে জেলা পরিষদ সদস্য হাজেরা পারভীন। তবে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার গ্রুপের পক্ষে সভাপতি হিসেবে মহিলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি ও সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নূরজাহান ইসলাম নীরার নাম শোনা গেলেও ওই গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক পদে কে প্রার্থী সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কেউ মুখ খুলছেন না।
সূত্র জানায়, এই পদের জন্য যারা প্রত্যাশী তার মধ্যে হাজেরা বেগম বাদে সকলেই শাহীন চাকলাদার অনুসারী। তবে নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র বলছে, কাউন্সিলে নেতৃত্ব নির্বাচন প্রক্রিয়া কী পদ্ধতিতে হয় সেদিক বিবেচনা করে সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য শাহীন গ্রুপের পক্ষে কাউকে সমর্থন দেওয়া হতে পারে। এক্ষেত্রে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি জোসনা আরা বেগম মিলির নাম আসার সম্ভাবনা বেশি বলে দলের একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। এ প্রসঙ্গে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি নূরজাহান ইসলাম নীরা বলেন, দীর্ঘদিন পর সম্মেলন হওয়ায় আমার ভালো লাগছে। আশা রাখি তৃণমূলের নেতৃত্বের মতামতের ভিত্তিতেই নেতৃত্ব বাছাই করবেন কেন্দ্রীয় নেতারা। তবে অপর প্রার্থী লাইজু জামান বলেন, বর্তমান কমিটি গঠিত হয়েছিল ২৪ বছর আগে। দুই যুগে নামমাত্র কয়েকটি সভা করেছে বর্তমান কমিটি। জেলা কমিটির অধিকাংশ নেতাই সক্রিয় নেই। আজ্ঞাবহদের দিয়ে দল পরিচালনা করা হচ্ছে। এই অবস্থায় নির্বাচনের মাধ্যমে নেতৃত্ব নির্বাচন সম্ভব নয়। তাই কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে বাস্তব অবস্থা তুলে ধরে বিষয়টির গুরুত্ব বিবেচনা করে দেখার বিষয়ে দৃষ্টি রাখার চেষ্টা করবো।

ভাগ