দাম কম থাকায় আমদানি বাড়িয়েছে ভারত

লোকসমাজ ডেস্ক॥ নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে এপ্রিলজুড়ে ভারতে লকডাউন চলেছে। এ সময় দেশটিতে শিল্প, পরিবহনসহ বিভিন্ন খাত কার্যত স্থবির ছিল। চাহিদা কমতির দিকে ছিল জ্বালানি তেলের। এর পরও গত এপ্রিলে আন্তর্জাতিক বাজার থেকে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানি আগের মাসের তুলনায় ৫ শতাংশ বাড়িয়েছে ভারত। খাতসংশ্লিষ্টরা বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে দাম তুলনামূলক কম থাকার সুযোগ নিতে এপ্রিলে ভারতীয় পরিশোধন কেন্দ্রগুলো জ্বালানি পণ্যটির আমদানি বাড়িয়েছে। খবর রয়টার্স ও বিজনেস লাইন।
ভারতের সরকারি সূত্রের বরাতে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চলতি বছরের এপ্রিলে আন্তর্জাতিক বাজার থেকে ভারতীয় আমদানিকারকরা প্রতিদিন গড়ে ৪৬ লাখ ৩০ হাজার ব্যারেল অপরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানি করেছেন। আগের মাসের তুলনায় গত এপ্রিলে দেশটিতে জ্বালানি পণ্যটির আমদানি বেড়েছে ৫ শতাংশ। তবে আগের মাসের তুলনায় বাড়লেও ২০১৯ সালের একই সময়ের তুলনায় গত এপ্রিলে ভারতে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানি ৪ দশমিক ১ শতাংশ কমেছে।
প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে চলমান লকডাউনের কারণে গত এপ্রিলে ভারতে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের চাহিদা কমে এসেছে। কার্যত স্থবির অর্থনৈতিক ও যোগাযোগ খাতের কারণে এ সময় দেশটিতে জ্বালানি পণ্যটির সম্মিলিত চাহিদা ২০০৭ সালের পর সর্বনিম্ন অবস্থানে রেখেছে। এর পরও এপ্রিলে আন্তর্জাতিক বাজার থেকে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানি বাড়িয়েছে ভারতীয় পরিশোধন কেন্দ্রগুলো। এ অবস্থার পেছনে প্রভাবক হিসেবে কাজ করেছে আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের রেকর্ড দরপতন। তাই স্বল্প মূল্যে অধিক পরিমাণে জ্বালানি তেল কিনে মজুদ বাড়িয়েছে ভারত।

ভাগ