তরুণ তরুণীর অমানবিক নির্যাতন ইউপি সদস্যের, ভিডিও ভাইরাল: আটক ৪

0

বিশেষ প্রতিনিধি॥ যশোরে ইউপি সদস্যের হাতে দুই তরুণ তরুণীর অমানবিক নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে ১৫ মার্চ সন্ধ্যায় যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের আব্দুলপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নির্যাতনের শিকার ওই তরুণ-তরুণী যশোর সদর উপজেলার আব্দুলপুর গ্রামের বাসিন্দা। তারা একে অন্যের নিকট আত্মীয় বলে জানিয়েছেন তাদের স্বজনরা। আর অভিযুক্ত ইউপি সদস্য আনিচুর রহমান চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য। শুক্রবার নির্যাতনের দুটি ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।


মেয়ে ও মেয়ের সঙ্গে থাকা যুবককে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগে ইউপি সদস্যসহ ৪ জনের নামে শুক্রবার ভুক্তভোগী তরুণীর বাবা বাদী হয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পরে থানা পুলিশ বিষয়টি মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করে অভিযুক্ত ইউপি সদস্যসহ চার জনকে আটক করেছে। নির্যাতনের শিকার তরুণীর বাবা অভিযোগ করে বলেন, ‘১৫ মার্চ সন্ধ্যায় আমার মেয়ে আত্মীয় এক যুবকের বাইসাইকেলে করে চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের এনায়েতপুর গ্রামে ওয়াজ মাহফিল শুনতে যায়। পরে ফেরার পথে তাদের বাইসাইকেল গতিরোধ করে অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগ এনে দুজনকেই অশালীন কথাবার্তা বলতে থাকেন ইউপি সদস্য আনিচুর রহমান, তার সহযোগী আইয়ুব আলী, ভুট্ট, আব্দুল আলীমসহ অজ্ঞাত ৪-৫ জন। এক পর্যায়ে তাদের দুজনকে একটি দোকানের ভেতরে নিয়ে বেধড়ক মারপিট করতে থাকেন তারা। খবর পেয়ে তাদের দুজনকে বাঁচাতে গেলে আমাকেও ধাক্কা দিয়ে তারা চলে যান।’ তিনি অভিযোগ করেন, তাদের দুজনকে বিনাদোষে অমানবিক নির্যাতন করেছেন অভিযুক্তরা। এই নির্যাতনকারীদের বিচার চাই।


ভাইরাল হওয়া ভিডিও দুটিতে দেখা যায়, একটি দোকানে অনেক মানুষের সামনে ওই তরুণীকে এলোপাথাড়ি জুতাপেটা করছেন ইউপি সদস্য আনিচুর রহমান। ওই তরুণী মাটিতে লুটিয়ে পড়লে ইউপি সদস্যের পাশে থাকা কয়েক যুবক লাথিও মারছেন। ভিডিওতে দেখা যায়, অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে তরুণীর সঙ্গে থাকা যুবককেও এলাপাথাড়ি মারধর করছেন ইউপি সদস্য ও তার সঙ্গে থাকা কয়েকজন যুবক। পরে আরেকটি ভিডিওতে দেখা যায়, কয়েকজন যুবক তরুণীর হাত ও পা ধরে রেখেছে আর ইউপি সদস্যের সঙ্গে থাকা আইয়ুব, ভুট্ট আর আব্দুল আলীমসহ তিন থেকে ৪ জন বিভিন্ন লাঠি দিয়ে তরুণীর হাতে-পায়ে বেধড়ক মারপিট করছেন। পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ওই যুবককেও একইভাবে লাঠি দিয়ে পেটান তারা। নির্যাতনের শিকার তরুণ-তরুণী বারবার ছেড়ে দেওয়ার কথা বললেও তারা কোনো কথা শোনেননি। এমনকি অনেককে দুই তরুণ-তরুণীর মাথা ন্যাড়া করে দেওয়ার কথাও বলতে শোনা গেছে ভিডিও দুটিতে।


এ বিষয়ে চুড়ামনকাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দাউদ হোসেন জানান, “ইউপি সদস্য আনিচুরসহ কয়েক জন তাদের মারপিট করেছে। এটা নৃশংস ও অন্যায়। আমি এর বিচার দাবি করছি।” তিনি আরও জানান, ঘটনার পর আনিচুর তার কাছে এসেছিলেন। তিনি ওই কিশোরী ও যুবক সম্পর্কে খারাপ অভিযোগ করেন। আমি তাকে বলেছি, ‘এ জন্য আইন আছে। তুমি কেন ব্যবস্থা নিবা।’ তিনি আরও বলেন, “আমি ভুক্তভোগী মেয়ে ও ছেলের পরিবারের সদস্যদের ইউনিয়ন পরিষদে আসতে বলেছিলাম। এর সুষ্ঠু বিচার করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলাম। কিন্তু এখন পর্যন্ত অভিযুক্ত ও ভুক্তভোগী কেউ আসেনি আমার কাছে।”
যশোর কোতয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ তাসমীম আলম জানান, ১৫ মার্চ সন্ধ্যার দিকে এক যুবতী সদর উপজেলার এনায়েতপুর গ্রামে একটি দরগাহ শরীফে অনুষ্ঠিত ওরস শরীফ থেকে এক যুবকের সাইকেলে তার বাড়ি আব্দুলপুরে আসে। এসময় আব্দুলপুরের কয়েক যুবক তাদের আটক করে। তাদের বিরুদ্ধে অনৈতিকতার অভিযোগ তুলে ইউপি সদস্য আনিচুরকে খবর দেয় এবং তাদেরকে একটি দোকানে আটকে রাখে। ইউপি সদস্য আসার পর তিনি অভিযোগ শুনে ওই তাদেরকে মারপিট করেন। এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ ওই গ্রামে গিয়ে ইউপি সদস্যসহ চার জনকে আটক করেছে। আটক অন্য তিন জন হচ্ছে আব্দুলপুর গ্রামের ভুট্টো, আজিম ও তৌহিদ। যুবতীর পিতা এ ঘটনায় শনিবার কোতয়ালি থানায় একটি মামলা করেছেন।
যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন যুবতী জানান, তার সাথে থাকা যুবকের সাথে খারাপ সর্ম্পকের অপবাদ দিয়ে ইউপি সদস্য আনিসুর রহমানের নেতৃত্বে জনসম্মুখে তাকে জুতা ও লাঠিপেটা করা হয়। তিনি ঘটনার সাথে জড়িতদের কঠোর শাস্তির দাবি করেছেন। যুবতীর পিতা মামলার আসামিদের চরম শাস্তি দাবি করেছেন। তিনি বলেন, তার মেয়ের সাথে যা করা হয়েছে এটা চরম জঘন্য ও ঘৃণ্য কাজ। যুবতীর মা বলেন, আমার মেয়েকে এমনভাবে পেটানো হয়েছে তার সমস্ত শরীরে কালো দাগ হয়ে গেছে। সে এখনো রাতে ভয়ে কেঁপে উঠছে। যশোর কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল ইসলাম বলেন, “ভুক্তভোগীর বাবা থানায় এসে ৪ জনের নামে মামলা করেছেন। মারধরের ভিডিও দেখে চিহ্নিতদের চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।”

Lab Scan