ডুবে যাওয়া লঞ্চটির বেশিরভাগ যাত্রী ছিল শিক্ষার্থী

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ শীতলক্ষ্যা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চটিতে বেশিরভাগ যাত্রীই শিক্ষার্থী বলে নিশ্চিত করেছে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুম। রোববার (২০ মার্চ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ থেকে মুন্সিগঞ্জ যাওয়ার পথে তেলবাহী একটি জাহাজ লঞ্চটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, তেলবাহী জাহাজ লঞ্চটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এরপর ধীরে ধীরে লঞ্চটি পানির নিচে তলিয়ে যেতে থাকে। এসময় অনেককেই বিভিন্ন দিক দিয়ে পানিতে লাফ দিতে দেখা যায়। লঞ্চটিতে শতাধিক যাত্রী ছিল। যদিও বিআইডব্লিউএর দাবি করেছে, ২০-২৫ জন যাত্রী ছিলেন। তাদের মধ্যে অনেকে সাঁতরে তীরে উঠেছেন। তবে অনেক যাত্রী নিখোঁজ রয়েছেন বলে জানান যাত্রী ও স্থানীয়রা।
পরে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা নদীতে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। খবর পেয়ে ডুবে যাওয়া লঞ্চটিতে থাকা যাত্রীদের স্বজনরা শীতলক্ষ্যা নদীর দুই তীরে ভিড় করেছেন। এসময় তাদের আহাজারি করতে দেখা যায়। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ওই লঞ্চের যাত্রী মোহাম্মদ জনি জানান, একটি কার্গোবাহী জাহাজ পেছন থেকে ধাক্কা দিলে মুহূর্তেই যাত্রী বোঝাই লঞ্চটি ডুবে যায়। পরে আমরা অনেককেই সাঁতরে তীরে উঠতে দেখেছি তবে অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন। লঞ্চের উপরে যারা ছিলেন তারা সাঁতরে উঠতে পেরেছেন। তবে ভেতরের একজনও বের হতে পারার কথা না। নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফীন জানান, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে কাজ শুরু করেছে।

Lab Scan