টানা দ্বিতীয় জয়ে যুব এশিয়া কাপের সেমিফাইনালে বাংলাদেশ

অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপে গ্রুপ পর্বে সংযুক্ত আরব আমিরাতের পর নেপালকেও হারালো বাংলাদেশ। রবিবার কলম্বোর পি সারা ওভালে তারা ‍জিতেছে ‍৬ উইকেটে। এই জয়ে সেমিফাইনালে খেলা নিশ্চিত করেছে দলটি। টস জিতে নেপালকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে ৮ উইকেটে ২৬১ রানে থামায় বাংলাদেশ। তারপর ৪৯.২ ওভারে ৪ উইকেটে ২৬২ রান করে তারা।
ব্যাট করতে নামা নেপালকে শুরুতে স্বস্তি দেয়নি বাংলাদেশ। ৯৩ রানের মধ্যে তাদের ৩ উইকেট তুলে নেয় তারা। পবন সারাফকে সঙ্গে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে ৬৬ রানের জুটিতে প্রতিরোধ গড়েন অধিনায়ক রোহিত পাউডেল। অবশ্য এই জুটি গড়তে মাত্র ১৪ রান করেন তিনি। কিছুক্ষণ পর পবন ইনিংস সেরা ৮১ রান করে মাঠ ছাড়লে দলকে লড়াই করার মতো স্কোর এনে দেন সন্দীপ ঝোরা। ভিম সারকির (২১) ‍সঙ্গে তার জুটি ছিল ৭১ রানের। ৫৬ রান করে আউট হন ‍সন্দীপ। বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ দুটি করে উইকেট নেন তানজীম হাসান সাকিব ও শাহীন আলম।
লক্ষ্যে নেমে মাত্র ১৯ রানে দুই ওপেনারকে হারায় বাংলাদেশ। তারা স্বস্তিতে ফেরে দ্বিতীয় উইকেটে তৌহিদ হৃদয় ও মাহমুদুল হাসান জয়ের ‍৭৯ রানের জুটিতে। মাহমুদ ‍৪০ রানে আউট হওয়ার পর তৌহিদের সঙ্গে আকবর আলীর জুটি ৩৪ রানের বেশি হয়নি। ইনিংসের দ্বিতীয় সেরা ‍৬০ রান করে বিদায় নেন তৌহিদ। আর কোনও উইকেট হারায়নি বাংলাদেশ। আকবর অধিনায়কোচিত এক ইনিংস খেলেন, দারুণ সঙ্গ পান শামীম হোসেনের কাছ থেকে। তাদের ১৩০ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ‘বি’ গ্রুপে টানা দ্বিতীয় জয় পায় গতবারের সেমিফাইনালিস্টরা। দলকে জেতাতে ম্যাচসেরা পারফরম্যান্স করেও হয়তো আফসোস থেকে গেলো আকবরের। জয়সচূক রানটি তার ব্যাট থেকে এলেও সেঞ্চুরি করতে পারেননি মাত্র ২ রানের জন্য। ৮২ বলে ১৪ চারে ৯৮ রানে অপরাজিত ছিলেন অধিনায়ক। আর ৪২ রানে খেলছিলেন শামীম। নেপালের পক্ষে কমল সিং সর্বোচ্চ দুটি উইকেট পান। বাংলাদেশ গ্রুপের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হবে আগামী মঙ্গলবার। ম্যাচটি হবে দুই দলের গ্রুপ সেরা হওয়ার লড়াই।

ভাগ