ঝিনাইদহে সুদখোরের জালে আটকা পড়েছেন এক গৃহকর্মী

0

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইাদহ ॥ ঝিনাইদহে সুদখোরের জালে আটকে পথে বসেছেন এক গৃহকর্মী। এ পর্যন্ত আসল টাকার কয়েকগুণ বেশি পরিধোধ করেও রেহাই পাচ্ছেন না তিনি। তার কাছ থেকে জোর করে ব্যাংকের সাদা চেক হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে সদর উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়নের কেশবপুর গ্রামে।
জানা গেছে, ওষুধ ব্যবসায়ী আমিরুল ইসলামের কাছ থেকে একই গ্রামের আনন্দ কুমার বিশ্বাসের স্ত্রী চঞ্চলা রাণী বিশ্বাস মাসিক ৭ হাজার টাকা সুদের বিনিময়ে ৪৫ হাজার টাকা নেন। দুই মাসে সুদের ১৪ হাজার টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে আমিরুল ইসলাম স্থানীয় প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করে চঞ্চলা রাণীর কাছ থেকে জোর করে সাদা চেকের পাতায় স্বাক্ষর করিয়ে নেন। পরবর্তীতে ওই চেকে ৩ লাখ টাকার অংক বসিয়ে ডিজঅনার দেখিয়ে ভুক্তভোগীর বাড়িতে লিগ্যাল নোটিশ পাঠান। এরপর আদালতে ওই দরিদ্র গৃহকর্মীর বিরুদ্ধে ৩ লাখ টাকার মামলা করেন।
জানা গেছে, ওষুধ ব্যবসার আড়ালে আমিরুল ইসলাম একাধিক ব্যক্তিকে সুদে টাকা ধার দিয়েছেন। এ সব অভিযোগের বিষয়ে আমিরুল ইসলাম এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘আমি এগুলো করি তাতে আপনার কী ? পুলিশের অনেক অফিসার আমার আত্মীয়, পারলে আমার বিরুদ্ধে লিখে কিছু করেন।’ চঞ্চলা রাণী অভিযোগ করেন, তিনি সুদ আসলসহ ৭০ হাজার টাকা দিতে চেয়েছিলেন, কিন্তু আমিরুল ইসলাম নিতে রাজি হয়নি। খোকন নামে এক ব্যবসায়ী জানান, চঞ্চলা রাণী পরের বাড়ি কাজ করে খান। তার পক্ষে ৩ লাখ টাকা দেওয়া সম্ভব না। আমরা বিষয়টি সমাধানের জন্য চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছি। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি শেখ সোহেল রানা জানান, এ ভাবে অর্থ আদায় দুঃখজনক ঘটনা। অভিযোগ পেলে দ্রুত তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Lab Scan