ঝিকরগাছায় বিএনপির অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী কারাগারে

0

ঝিকরগাছা (যশোর) সংবাদদাতা॥ যশোরের ঝিকরগাছায় বিএনপি-জামায়াতে ইসলামীর অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী বর্তমানে কারাগাওে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। বর্তমান সরকারের পদত্যাগসহ একদফা দাবি আদায়ের বিএনপিসহ সমমনা দলের ডাকা কর্মসূচিকে ঘিরে এসব নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে বলা হয়েছে। গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় সমাবেশে যাওয়ার ‘অপরাধে’ নেতাকর্মীদের আটক, বাড়ি বাড়ি তল্লাশী অব্যাহত রেখেছে পুলিশ। ফলে গ্রামছাড়া হয়ে হাজার হাজার নেতাকর্মী পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।
আটকদের ভেতর আছেন, পৌরসদরের ৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ঝিকরগাছা উপজেলা বিএনপির প্রয়াত সভাপতি শহীদ নাজমুল ইসলামের সহধর্মিনী কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য, ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সাবিরা নাজমুল মুন্নি, মোবারকপুর ৬নং ওয়ার্ডের মৃত আনিছুর রহমানের ছেলে ঝিকরগাছা উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব শাহিন আলম বিপ্লব, গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য অধ্যাপক মোমিনুর রহমান, গোরশুটি গ্রামের বাসিন্দা ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা আনিছুর রহমান, মাগুরা ইউনিয়নের সন্তোসনগর গ্রামের বাসিন্দা বিএনপি নেতা শফিকুল ইসলাম, শিমুলিয়া ইউনিয়নের খাশখালী গ্রামের বাসিন্দা উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক ও উপজেলা যুবদলের আহবায়ক কমিটির সদস্য অধ্যাপক খাইরুল ইসলাম, গদখালী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ওয়াহেদুজ্জামান লিটু, প্রবীন বিএনপি নেতা ডা. কামাল হোসেন ও তার ছেলে শাওন হোসেন, পানিসারা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. আবুল খায়ের, কৃষ্ণচন্দ্রপুর গ্রামের বাসিন্দা বিএনপি নেতা রবিউল ইসলাম রবি ও পানিসারা ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাহিদুজ্জামান নাহিদ, ঝিকরগাছা সদর ইউনিয়ন বিএনপির প্রস্তাবিত কমিটির সহসভাপতি আলালউদ্দীন, নওদাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ৮নং ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সভাপতি রুহুল আমীন ও মল্লিকপুর গ্রামের বাসিন্দা ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রুস্তম আলীর ভাগ্নে রবিউল ইসলাম, নাভারন ইউনিয়নের বেলেমাঠের বাসিন্দা বিএনপি নেতা মোশারেফ হোসেন, নাভারন কলোান গ্রামের বাসিন্দা উপজেলা যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক আব্দুল ওয়াহাব টিক্কা ও বেলেমাঠ গ্রামের বাসিন্দা যুবদল নেতা রাসেল হোসেন, নির্বাসখোলা ইউনিয়নের বল্লা গ্রামের বাসিন্দা বিএনপি নেতা ডা. আবু তালেব, নির্বাসখোলা গ্রামের বাসিন্দা বিএনপি নেতা সাইফুল আজাদ, আশিংড়ী গ্রামের বাসিন্দা উপজেলা যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক আশরাফ হোসেন সাগর, পারব্যাড়ারো পানি গ্রামের বাসিন্দা যুবদল নেতা জামির হোসেন, হাজিরবাগ ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জামশেদ আলী, হাজিরবাগ ইউনিয়নের মহেশপাড়া ওয়ার্ডের ৪ বারের মেম্বার মো. আলাউদ্দিন, মহেশপাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলাম, শংকরপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মাস্টার ফয়জুর রহমান, সদস্য লুতফর রহমান মেম্বার ও শংকরপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সভাপতি বড়পৌদাউলিয়া গ্রামের বাসিন্দা জিয়াউর রহমান দুদু, বাঁকড়া ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক আমিরুল ইসলাম, ইউনিয়ন বিএনপি নেতা মুকুন্দপুর গ্রামের আব্দুস সামাদ, খোশালনগরের শামছুর রহমান, ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও যুবদল নেতা আবু সাঈদ, যুবদল নেতা উজ্জলপুর গ্রামের তরিকুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, খোশালনগরের বাবু ও নির্বাখোলা ইউনিয়নের রাজারডুমুরিয়া গ্রামের আবউল ইসলামের ছেলে যুবদল নেতা আব্দুল আলিম।
এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে জামায়াতে ইসলামীর ১৫জন নেতাকর্মীকে আটক করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ। আটকরা হলেন, পৌর সদরের কৃষ্ণনগর গ্রামের বাসিন্দা উপজেলা জামায়াতে ইসলামীর সাবেক সেক্রেটারি শেখ আশরাফুল আলম, গঙ্গানন্দপুরের সাইফুল ইসলাম, নির্বাসখোলা ইউনিয়নের আশিংড়ী গ্রামের মাওলানা কাজী আনোয়ার হোসেন, কানারালী গ্রামের শামিম রেজা, ঝিকরগাছা সদর ইউনিয়নের লাউজানী গ্রামের বাসিন্দা কপোতাক্ষ হজ গ্রুপের মোয়াল্লেম গাজী ফয়েজ, সাগরপুর গ্রামের বাসিন্দা ঝিকরগাছা দারুল উলুম কামিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক আব্দুস সামাদ মেম্বার, হাজিরবাগ ইউনিয়নের মহেশপাড়া গ্রামের জামায়াত নেতা ইয়াসিন কবির ও শফিকুল রহমান, সোনাকুড় গ্রামের বাসিন্দা হাফেজ রাইহানুর রহমান,বাঁকড়া ইউনিয়নের মাটশিয়া গ্রামের বাসিন্দা মাওলানা শাহ্ আলম, মাটশিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার আনোয়ারুল ইসলাম মেম্বার, খোলসি গ্রামের হাফেজ মাওলানা বাশিরুজ্জামানসহ ১৫জন। আটককৃতদের বিরুদ্ধে ঝিকরগাছা থানা পুলিশ কথিত নাশকতার মামলা দিয়েছে।
ঝিকরগাছা উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মোর্তজা এলাহী টিপু বলেন, সরকারের পদত্যাগসহ একদফা দাবি আদায়ের আন্দোলন পন্ড করতে ক্ষমতাসীন সরকারের নির্দেশে পুলিশ একের পর একটা মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন মামলা দিচ্ছে এবং নেতাকর্মীদের আটক করে জেলে পাঠাচ্ছে। পুলিশের এহেন কাজ থেকে বিরত থাকারও আহবান জানিয়েছেন তিনি।

 

Lab Scan