ঝিকরগাছায় ইয়ার আলী হত্যা মামলায় আটক দুজন রিমান্ডে

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বেনেয়ালী গ্রামে মাসুম বিল্লাহ ওরফে পিয়ার আলী হত্যা মামলায় আটক দুজনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রোববার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মাহাদী হাসান পুলিশের করা আবেদনের শুনানি শেষে তাদের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আসামিরা হলেন, বেনেয়ালী গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে সেলিম বাবু ও হজরত আলী মোড়লের ছেলে সহিদুল ইসলাম। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. আনিছুর রহমান আদালতে তাদের ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়েছিলেন।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, পিয়ার আলী মনিরামপুর উপজেলার মাহমুদকাঠি গ্রামের মোতালেব জমাদ্দার ওরফে ভুট্টোর ছেলে। তিনি ঢাকায় একটি তুলার কারখানায় চাকরি করতেন। গত ৭ মে তিনি ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন বেড়াতে। এরপর গত ২১ মে বিকেলে তিনি শার্শা উপজেলার কাগজপুকুর গ্রামে বোনের বাড়িতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে নিজ বাড়ি থেকে বের হন। ওইদিন গভীর রাতে পিয়ার আলীর মোবাইল ফোন নম্বর দিয়ে অপরিচিত এক ব্যক্তি তার পিতাকে ফোন করে জানান, তার ছেলে অসুস্থ অবস্থায় বেনেয়ালীস্থ তেল পাম্পের পাশে পড়ে আছেন। এ খবর পেয়ে স্বজনেরা রাতে সাড়ে তিনটার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বেলেরমাঠ নামক স্থানে যশোর- বেনাপোল মহাসড়কের পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করেন। পরে পরিবারের লোকজন খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারেন, বেনেয়ালী মোড়লপাড়ার হাসান আলী ও তার স্ত্রী মুন্নি বেগম লোকজন দিয়ে তাকে হত্যার পর লাশ রাস্তার পাশে ফেলে এসেছিলেন। গত শনিবার এ ঘটনায় নিহতের পিতা মোতালেব জমাদ্দার ভুট্টো বাদী হয়ে উল্লিখিত দুজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৭-৮ জনকে আসামি করে ঝিকরগাছা থানায় একটি মামলা করেন। পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. আনিছুর রহমান হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে সেলিম বাবু ও সহিদুল ইসলামকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করেন। এ সময় আদালতে তাদের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। রোববার শুনানি শেষে বিচারক তাদের ২ দিনের করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

Lab Scan