জামিনে থাকলেও মাদ্রাসা শিককে আটক করলো পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরে জামিনে থাকা মামলার রিকল দেখানোর পরও একজন মাদ্রাসাশিক্ষককে ধরে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। পুলিশ তার জামিনের রিকলও নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছেন ওই শিক্ষকের স্বজনেরা। তবে পুলিশ বলছে, রিকল যাচাই বাছাই করে দেখা হচ্ছে। তাছাড়া তার বিরুদ্ধে আরও কোন মামলার ওয়ারেন্ট আছে কি-না তাও দেখা হচ্ছে।
মাদ্রাসার ওই শিক্ষকের নাম ইমদাদুল হক বুলবুল। তিনি সদর উপজেলার কচুয়া গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে এবং জিরাট আলিম মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করেন। তার স্বজনদের অভিযোগ, গতকাল বিকেল ৪ টার দিকে ইমদাদুল হক বুলবুল মাদ্রাসা থেকে বের হওয়ার পর পরই তাকে আটক করেন নরেন্দ্রপুর পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই গোলাম মোর্তজা। বলা হয়, তার বিরুদ্ধে মামলার ওয়ারেন্ট রয়েছে। পুলিশ তার বিরুদ্ধে যে মামলার ওয়ারেন্ট আছে বলে জানায় তিনি তাতে জামিনে আছেন। পরে এসআই গোলাম মোর্তজার সাথে দেখা করে স্বজনেরা রিকল দেখান। এ সময় এসআই গোলাম মোর্তজা রিকল এবং স্বজনদের কাছে থাকা এর ফটোকপিও নিয়ে নেন। কিন্তু রিকল দেখানোর পরও ইমদাদুল হক বুলবুলকে ছাড়েনি পুলিশ। তাকে কোতয়ালি থানায় নিয়ে যায়। এদিকে রাত ৯ টার দিকে যোগাযোগ করা হলে স্বজনদের অভিযোগ বিষয়ে এসআই গোলাম মোর্তজা বলেন, তার রিকল সঠিক কি-না তা যাচাই বাছাই করে দেখা হচ্ছে। তাছাড়া তার বিরুদ্ধে আরও মামলা রয়েছে। এসব মামলায় তার বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট থাকতে পারে। এ কারণে অন্য মামলার ওয়ারেন্ট আছে কি-না তাও দেখা হচ্ছে।

ভাগ