জনগণের আবেগ নিয়ে ছিনিমিনি না খেলে,অবিলম্বে তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠনের প্রেক্ষাপট তৈরি করুন অনিন্দ্য ইসলাম অমিত:

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর জেলা যুবদলের বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপির খুলনা বিভাগীয় ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত বলেছেন,বর্তমান ফ্যাসিস্ট কতৃত্ববাদী সরকার দমন পীড়ন চালিয়ে বিএনপির নেতৃত্বাধীন চলমান জনতার আন্দোলন দাবিয়ে রাখতে পারবে না। বিএনপির একজনী কর্মী বেঁচে থাকা পর্যন্ত  এ আন্দোলন চলবে । চূড়ান্ত আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারের পতন ঘটিয়ে আমরা ঘরে ফিরবো ইনশা আল্লাহ। তাই জনগণের আবেগ নিয়ে ছিনিমিনি না খেলে,সময় থাকতে পদত্যাগ করে তত্ত্ববধায়ক সরকার গঠনের প্রেক্ষাপট তৈরি করুন।
কেন্দ্রীয় যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মোনায়েম মুন্না,যশোর জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আনসারুল হক রানাসহ কারাবন্দী নেতাকর্মীদের মুুক্তির দাবিতে  রবিবার (১৪ মে) জেলা যুবদল বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজনে করে। জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অনিন্দ্য ইসলাম অমিত আরও বলেন,বিগত এক যুগের অধিক সময় অনেক নির্যাতন সহ্য করেছি । এখন আর মার খাওয়ার সময় নেই। এখন সময় প্রতিরোধের । একটি গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ বিনির্মাণের জন্য বিএনপি আন্দোলন করছে। যে বাংলাদেশে আইন আদালত স্বাভাবিক ভাবে পারিচালিত হবে। যে আইনের শাসনের কথা বলে বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রেক্ষাপট রচনা হয়েছিল। পাকিস্তানের সাথে যুদ্ধ করে মুক্তিযোদ্ধারা বাংলাদেশ নামক স্বাধীন সার্বভেীম ভু-খন্ড অর্জন করেছিলেন। সেই পাকিস্তানের আদালত স্বাভাবিক ভাবে পরিচালিত হয়। অথচ স্বাধীনতার ৫২ বছর পর বাংলাদেশের আইন আদালত সরকারের আজ্ঞাবহ। এই লাল সবুজের পতাকার জন্যে শহীদ জিয়াউর রহমান ১৯৭১ সালে নিজের জীবনকে তুচ্ছ করে অস্ত্র কাধেঁ তুলে নেননি। এই বাংলাদেশ দেখবার জন্যে মুক্তিযোদ্ধারা জীবন বাজি রেখে রণাঙ্গনে ঝাঁপিয়ে পড়েননি। কিংবা মা বোনেরা তাদের ইজ্জত সম্ভ্রম বির্সজন দেননি। অনিন্দ্য ইসলাম অমিত বলেন, আজ সরকার বলছে যারা সংশন দিয়েছে তাদের কাছ থেকে কোন পণ্য কিনবেন না। কিন্তু তারা যদি আমাদের পণ্য না নেয় ,তাহলে দেশের অবস্থা কি হবে?
বিক্ষোভ সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক নার্গিস বেগম ও যুগ্ম-আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন। জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি আমিনুর রহমান মধুর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম-সম্পাদক নাজমুল হোসেন বাবুলের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,শার্শা উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক খায়রুজ্জামান মধু,যশোর নগর বিএনপির সভাপতি রফিকুল ইসলাম চৌধুরী মুল্লুক চাঁদ,সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আঞ্জুরুল হক খোকন, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি সাইদুর রহমান বিপুল,যুগ্ম-সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রতন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা আমির ফয়সাল, নগর যুবদলের আহ্বায়ক আরিফুল ইসলাম আরিফ, সদস্য সচিব শেখ রবিউল ইসলাম রবি, জেলা ছাত্রদলের সভাপতির রাজিদুর রহমান সাগর, জেলা যুবদলের দপ্তর সম্পাদক কামরুল ইসলাম, যুবদল নেতা তানভীর রায়হান তুহিন, আবুল কালাম আজাদ, মোনাজ্জেল হোসেন লিটন, মোতাহারুল ইসলাম রিয়াদ, এখলাস হোসেন, মোস্তাফিজ্জোহা সেলিম, আব্দুল মান্নান,গোলাম মোস্তফা,আতাউর রহমান, বিল্লাল হোসেন,হিরু আহমেদ, মফিজুর রহমান বাবু প্রমুখ।

Lab Scan