চৌগাছায় রান্না করা খাবার অবশেষে খেল স্থানীয় কর্মী ও সাধারন মানুষ

0

মুকুরুল ইসলাম মিন্টু, চৌগাছা (যশোর)॥ দীর্ঘদিন পর বুধবার যশোরে বিএনপির সমাবেশে, তাই অন্য রকম এক ইমেজ তৈরী হয় চৌগাছা বিএনপি ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে। শহর থেকে গ্রাম, গ্রাম থেকে পাড়া মহল্লায় সর্বত্র যেন ঈদের আনন্দ ভাব সৃষ্টি হয়। নেতাকর্মীরা উদজীবিত, সাধারণ মানুষকে এই সভায় নিতে রাতভর প্রাণপন চেষ্টা। নেতাকর্মীদের ডাকে সাড়াে দন সাধারণ মানুষও দাবি বিএনপির নেতাকমৃীদের। সকালে পরিবারের সব কাজ ফেলে রেখে যশোরে যেতে প্রস্তুত সকলেই। কর্মী ও সাধারণ মানুষকে দুপুরে একমুঠো খাবার দিতে মনস্থির করেন চৌগাছা উপজেলা ও পৌর বিএনপির নেতৃবৃন্দ। সেই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার রাত ৯ টার দিকে পৌর সদরের ২ নং ওয়ার্ডে একটি গরু জবাই দেয়া হয়। আড়াই মন গরুর মাংস ও প্রায় ৪ মন চালের সমন্বয়ে বিরিয়ানী রান্না করা হয়। সকাল ৯ টা বাজতে না বাজতে প্রায় ৪ হাজার প্যাকটে সেই খাবার ভরেন নেতাকর্মীরা। তাদের লক্ষ্য উদ্যোশ্য একটিই সভাস্থলে দলীয় কর্মীদের মাঝে এই প্যাকেট খাবার বিতরণ করবেন, কিন্তু পুলিশি বাঁধায় নেতাদের সব স্বপ্ন বিফলে যায়। দুপুরে চৌগাছার সরকারী শাহাদৎ পাইলট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে সমুদয় খাবার স্থানীয় কর্মী ও সাধারণ মানুষের মাঝে বিতরণ করেন নেতৃবৃন্দ। উপজেলা বিএনপির আহবায়ক জহুরুল ইসলাম ও পৌর বিএনপির আহবায়ক সাবেক মেয়র সেলিম রেজা আওলিয়ার বলেন, পুলিশি কর্মকান্ডে আমরা হতাশ হয়েছি, দীর্ঘদিন পর আমরা সভা করছি, সেখানে নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ অংশ নিবে এটি স্বাভাবিক অথচ কোন কারণ ছাড়ায় তা বন্ধ করে দেয়া হল। রাতভর রান্না করা বিরিয়ানী পরে দলের কর্মীদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

Lab Scan