চৌগাছায় সরকারি জমির গাছ কেটে পুকুর খননের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার, চৌগাছা (যশোর) ॥ যশোরের চৌগাছায় সরকারি জমির অর্ধলাখ টাকার গাছ কেটে বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় গ্রামবাসীর পক্ষে আব্দুর রাজ্জাক নামের একজন ব্যক্তি সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার গদাধারপুর সরকারি প্রাথমিক স্কুলের পিছনের প্রায় ৫০ হাজার টাকার ২২ টি বিভিন্ন প্রজাতির সরকারি গাছ কেটে বিক্রি করেছেন মাশিলা গ্রামের সোলাইমান হোসেনের ছেলে আরাফাত হুসাইন। সরকারি স্কুলের পেছনে আরাফাত হুসাইনের ২৫ কাঠা জমি আছে। আরাফাত কিছুদিন আগে সেখানে সরকারি গাছ কেটে পুকুর খনন শুরু করেন। এ সময় গ্রামবাসী বাধা দিলে গাছকাটা জমি তার পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া বলে তিনি দাবি করেন।
খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, আরাফাত হুসাইন যেখানে পুকুর খনন করছেন তার পাশেই প্রায় ১০ শতক সরকারি জমি আছে। এই জমিতে নানা প্রজাতির প্রায় ৩০ টি গাছ ছিলো। গত ৮ জুলাই আরাফাত হুসাইন ওই গাছ বিক্রি করেছেন। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর পক্ষে আব্দুর রাজ্জাক নামের এক ব্যক্তি উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ বিষয়ে আরাফাত হুসাইনের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, যে জমি নিয়ে অভিযোগ উঠেছে তার সমস্ত কাগজপত্র আছে বলে দাবি করেন। সহকারী কমিশনার (ভূমি) নারায়ণ চন্দ্র বলেন, সরকারি গাছ কাটার বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। আমি সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাকে ঘটনাটি তদন্তের জন্য নির্দেশ দিয়েছি। সত্যতা পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

ভাগ