চৌগাছায় বৃষ্টিতে ব্যস্ততা বেড়েছে আমন চাষিদের

0

এমএ রহিম,চৌগাছা (যশোর )॥যশোরের চৌগাছায় শ্রাবণের বৃষ্টিতে চাষির মনে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরেছে। এতে ব্যস্ততা বেড়েছে আমন চাষিদের। যার ফলে মনের আনন্দে আমন ধানের পরিচর্যা করছেন চাষিরা। তবে এখনও পাট জাগ দেয়ার মত পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়ায় পাট চাষিরা রীতিমত হতাশায় দিন কাটাচ্ছেন।
চলিত আমন মৌসুমে চৌগাছা উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকায় প্রায় বিশ হাজার হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষ হয়েছে। এ বছর আষাঢ় মাসে পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়ায় আমন চাষের প্রায় আশি ভাগ জমিতে সেচের মাধ্যমে ধান রোপণ করা হয়েছে। আষাঢ় শেষে শ্রাবণেও আশানুরুপ বৃষ্টি না হওয়ায় সেচের পানি নিয়েই আমন চাষের কার্যক্রম চালাতে হয়েছে। এমতাবস্থায় আমন উৎপাদনে কৃষকের বিঘা প্রতি খরচ কমপক্ষে পাঁচ হাজার টাকা বাড়বে বলে তারা জানান। তারপরেও আমন ধান পুরোপুরি সেচ নির্ভর হলে ধানক্ষেতে নানা রকম রোগ বালাই লেগেই থাকে। হঠাৎ গত কয়েকদিন ধরে মুষলধারে না হলেও ঝিরিঝিরি করে প্রতিদিনই প্রায় বৃষ্টি হচ্ছে। যার ফলে প্রায় দশ দিন ধরে সেচ পা¤পগুলো বন্ধ রয়েছে। কৃষকরা পুরোদমে ব্যস্ত সময় পার করছেন আমন ক্ষেতপরিচর্যার কাজে।

উপজেলার সিংহঝুলি গ্রামের আমন চাষি সাবের আলী সরদার, সাইফুল ইসলাম, সামছুল হুদা দফাদার, টনিরাজ খান, সাগর খান, ইছাহক আলী দফাদারসহ আরো অনেকে জানান, থেমে থেমে শ্রাবণের যে বৃষ্টিটুকু হচ্ছে তাতেই আমন ধানের বেশ উপকার হচ্ছে। উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের আমন চাষি বাবুল আক্তার, নুরুল ইসলাম, আব্দুল লতিফ পন্ডিত ও জহির উদ্দীন জানান, বর্তমানে যে বৃষ্টিপাত হয়েছে তাতেই মাঠে আমন ধানের চেহারায় পরিবর্তন এসেছে। শ্রাবণে বৃষ্টি কম হলেও প্রতিদিন বৃষ্টি হওয়াতে আমন ধানের অবস্থা ভাল।

চৌগাছা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোসাব্বির হুসাইন বলেন, চলতি মৌসুমে আষাঢ় মাসে বৃষ্টিপাত কম হওয়ায় আমন ধানের চাষ নিয়ে আমরা দুশ্চিন্তায় ছিলাম। শ্রাবণের শেষে এসে হালকা বৃষ্টি আমাদেরকে আশান্বিত করেছে। বর্তমানে চৌগাছা উপজেলার মাঠে মাঠে ধানের সবুজ চারা স্বপ্ন দেখাচ্ছে চাষিদের। তিনি আরো বলেন, চাষিরা যাতে নির্বঘেœ তাদের ধান চাষ করতে পারে তার সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করবে সরকার। তিনি আশ্বস্ত করেন সার ও কীটনাশকেরও কোন সংকট হবে না।

 

Lab Scan