চৌগাছায় ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজ দিয়ে যান চলাচল, দুর্ঘটনা ঘটার শঙ্কা

0

এম এ রহিম, চৌগাছা (যশোর) ॥ চৌগাছায় ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজে যে কোনসময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। চৌগাছা-ঝিকরগাছা সড়কের মুলিখালী বটতলার নাটনার খালের ওপরের ঝুঁকিপূণ ব্রিজ দিয়ে প্রতিনিয়ত চলাচল করছে পণ্যবাহী যানবাহনসহ হাজার-হাজার পথচারী। ব্রিজটি বহুদিনের পুরাতন হওয়ায় ইতোমধ্যে বিভিন্ন স্থানে ফাঁটলও দেখা দিয়েছে। স্থানীয়রা জানান, ব্রিজটি ভেঙে পড়লে গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কের যোগাযোগ ব্যবস্থা একেবারেই বন্ধ হয়ে যাবে।
ট্রাক চালক শাহ-আলম বলেন, চৌগাছা ও ঝিকরগাছা দুটি উপজেলার যোগাযোগের একমাত্র সড়ক এটি। এ সড়কের নাটনার খালের ওপরের ব্রিজটি ব্যাপক গুরুত্বপূর্ণ। ওই ব্রিজের ওপর দিয়ে প্রতিনিয়ত পণ্য ও যাত্রীবাহী বিভিন্ন যানবাহনসহ দুটি উপজেলার হাজারও মানুষ চলাচল করে। চৌগাছা-ঝিকরগাছার সাথে যোগাযোগের বিকল্প সড়ক না থাকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে জরাজীর্ণ এ ব্রিজ দিয়ে চলাচল করছে যানবাহনসহ পথচারীরা। দীর্ঘদিন যাবৎ ব্রিজটি জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ হলেও দেখার যেন কেউ নেই। ভ্যান চালক ইয়াকুব হোসেন বলেন, পেটের দায়ে জীবরেন ঝুঁকি নিয়ে এ ব্রিজের ওপর দিয়ে যাত্রী নিয়ে চলাচল করে থাকি। ব্রিজটি অনেক পুরাতন হওয়ায় বিভিন্ন অংশে ফাঁটল ও সমস্যা দেখা দিয়েছে।
শনিবার (৮ জুলাই) সরেজমিন দেখা যায়, এলজিইডি প্রায় ২৫ থেকে ৩০ বছর আগে চৌগাছা ও ঝিকরগাছা উপজেলার সাথে যোগাযোগ রক্ষার জন্য নাটনার খালের ওপর এ ব্রিজটি নির্মাণ করে। দীর্ঘদিনের নির্মিত এ ব্রিজের বিভিন্ন অংশে ফাঁটল ও গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে এর ওপর দিয়ে চলাচল ব্যাপক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে গেছে। হালকা ও ভারী কোনো যান উঠলেই ব্রিজটি কাঁপতে থাকে। বেশ কয়েক বছর ধরেই ব্রিজটির অবস্থা জরাজীর্ণ। ব্রিজটির আস্তরণ ভেঙে পড়তে শুরু করেছে। ঝুঁকিপূর্ণ হলেও বাধ্য হয়ে যানবাহনসহ দুটি উপজেলার হাজারও মানুষ নিয়মিত চলাচল করছে। এ ব্যাপারে চৌগাছা উপজেলা প্রকৌশলী ইমতিয়াজ আহমেদ রিয়াসাত জানান, ‘বিষয়টি আমার জানার বাইরে আপনার নিকট থেকে শুনলাম। সরজমিনে গিয়ে ব্রিজের কী অবস্থা দেখব। তারপর পরবর্তী পদক্ষেপ নিব। তবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে নাটনার খাল খননের কাজ চলছে এইজন্য হইতো এমনটা হতে পারে।’

 

Lab Scan