চৌগাছায় ছয় মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১১

0

এম এ রহিম, চৌগাছা (যশোর) ॥ চৌগাছায় সড়ক দুর্ঘটনায় গত ছয় মাসে ১১ জন নিহত হয়েছেন। এ সময় অনেকেই পঙ্গু হয়েছেন। আহতদের চিকিৎসা করাতে অনেক পরিবার সহায়-সম্বল বিক্রি করে সর্বস্বান্ত হয়ে গেছেন।
গত ছয় মাসে চৌগাছায় ৬টি রুটে থ্রি-হুইলার, আলমসাধু, ভটভটি, নছিমন, করিমন ও ইজিবাইক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন ১১ জন। উচ্চ আদালতের নির্দেশ থাকার পরও প্রশাসনের সহায়তায় বিভিন্ন মহাসড়কে চলছে এসব অবৈধ যানবাহন।
হাসপাতাল ও থানা পুলিশের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী সড়ক দুর্ঘটনায় উপজেলায় গত ৫ জুলাই বুধবার দুপুরে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে হাসিনা বানু (৬৫) নিহত হন। উপজেলার নারায়ণপুর বাজারে কপোতাক্ষ নদ ব্রিজ ঘাটে দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত হাসিনা বানু নারায়ণপুর গ্রামের পূর্ব পাড়ার আবু শামার স্ত্রী। গত ৮ জুন বৃহস্পতিবার দুপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় হাফেজ রবিউল ইসলাম রুবেল (২৬) ও হজরত আলী (৩০) নিহত হন। এদিন রাতে চৌগাছা-যশোর সড়কের নিমতলা নামকস্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত রুবেল যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের খিতিবদিয়া গ্রামের আতর আলীর ছেলে ও হাফেজ হজরত আলী পাবনা জেলার আতায়কুলা উপজেলার গঙ্গারামপুর গ্রামের আব্দস শুকুরের ছেলে। গত ১৩ মে শনিবার সড়ক দুর্ঘটনায় শহিদুল ইসলাম (৩৫) নিহত হন। তিনি উপজেলার বুন্দলীতলা গ্রামের নবাব আলীর ছেলে। তিনি মোটরসাইকেলে চৌগাছা বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। ১০ এপ্রিল সোমবার রাতে আত্মীয় বাড়ী থেকে স্ত্রীকে মোটরসাইকেলে নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় হাফিজুর রহমান (৪২) নিহত হন। এ ঘটনায় তার স্ত্রী জামেনা বেগম আহত হন। হাফিজুর রহমান ঝিকরগাছা উপজেলার গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের শিপচন্দ্রপুর গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে। গত ২০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার রাতে চৌগাছা-যশোর সড়কের জাহাতাফ মুন্সি মোড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নুরুল আমিন (৬৫) নিহত হন। তিনি উপজেলার জগদিশপুর ইউনিয়নের আড়পাড়া গ্রামের মৃত হাশেম মুন্সির ছেলে। গত ৩ মার্চ শুক্রবার রাত ৯ টার দিকে চৌগাছা-মহেশপুর সড়কের বাটিকামারি মোড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় ইব্রাহীম হোসেন (৩২) নিহত হন। তিনি পৌর শহরের কুঠিপাড়া গ্রামের ইউছুফ আলীর ছেলে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে পঙ্গুত্ববরণ করেন ইব্রাহিমের কারখানার রং মিস্ত্রী জাহাঙ্গীর হোসেন (২৮)। তিনি পৌর শহরের কুঠিপাড়া গ্রামের মৃত বাক্কী আলীর ছেলে। গত ১১ মার্চ শনিবার রাতে পৌর শহরের চৌগাছা-আড়পাড়া সড়কের ইছাপুর বটতলা মোড়ে ইজিবাইক চাপা পড়ে তাসকিন আহমেদ রিফাত (৫) নামে এক শিশু নিহত হয়। নিহত রিফাত পৌর শহরের ইছাপুর গ্রামের দেওয়ান পাড়ার জসিম উদ্দীনের ছেলে। একটি ইজিবাইক তাকে চাপা দেয়। গত ১৮ মার্চ শনিবার সকালে সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুলছাত্রী শ্রেয়া বালার (৮) মৃত্যু হয়। পৌর শহরের প্রাণকেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। গত ৮ মার্চ বুধবার সড়ক দুর্ঘটনায় আলমসাধু চাপা পড়ে সুজন হালদার (৩৩) নামে এক মাছ ব্যবসায়ী নিহত হন। এ ঘটনায় চালক রফিকুল ইসলাম (৪১) ও যাত্রী আতিয়ার রহমান (৪৫) মারাত্মক আহত হন। নিহত সুজন হালদার পার্শ্ববর্তী ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার নস্তি গ্রামের অবনিশ হালদারের ছেলে। গত ১২ জানুয়ারি বৃহ¯পতিবার বিকেলে চৌগাছা-মহেশপুর সড়কের হাজরাখানা পীর বলুহ দেওয়ান দাখিল মাদরাসার মোড়ে প্রাইভেটকার চাপায় সুফিয়া বেগম (৬২) নিহত হন। তিনি উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের হাজরাখানা গ্রামের নওয়াব আলীর স্ত্রী। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হন সিংহঝুলি ইউপি পরিষদের সদস্য আল-আমিন (৪৭), প্রাইভেটের চালক বারুইহাটি গ্রামের আশাদুল ইসলাম টেংরা (৪০) ও বলিদাপাড়া গ্রামের নাজমুল ইসলাম (৩৮)। সকল হতাহতের ঘটনায় অনেক পরিবার সবকিছু হারিয়ে পথে বসে গেছে।
চৌগাছায় নিরাপদ সড়ক চাই সংগঠনের নেতা আব্দুল মুন্নাফ মিয়া বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় অকাতরে প্রাণ হারানোর বিষয়ে সড়ক-মহাসড়কে অবৈধ যান চলাচলের বিষয়ে শুধু চৌগাছায় বন্ধ হলে হবে না। সারা দেশেই বন্ধ করতে হবে। এজন্য সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয় কাজ করছে। তারপরও আমরা সড়কগুলো অবৈধ যানমুক্ত করতে কাজ করছি।

 

 

 

Lab Scan