চীনে কফি রফতানি বাড়াবে ইথিওপিয়া

লোকসমাজ ডেস্ক।। আফ্রিকার শীর্ষ ও বিশ্বের অন্যতম প্রধান কফি উৎপাদনকারী দেশ ইথিওপিয়া। আন্তর্জাতিক বাজারে পানীয় পণ্যটির চাহিদা রয়েছে প্রচুর। সম্প্রতি দেশটির খাতসংশ্লিষ্টরা পণ্যটির প্রধান ক্রেতা দেশ বাদেও চীনে রফতানি বাড়াতে উদ্যোগী হয়েছেন। খবর সিনহুয়া।
দেশটির সরকারি তথ্য অনুযায়ী, অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটানোর পর ইথিওপিয়া থেকে বছরপ্রতি গড়ে দুই লাখ টন কফি আন্তর্জাতিক বাজারে রফতানি হয়। দেশটি থেকে রফতানীকৃত কফির বেশির ভাগের গন্তব্য থাকে ইউরোপ, পূর্ব এশিয়া ও উত্তর আমেরিকার দেশগুলোয়। এর মধ্যে অর্ধেকের বেশি রফতানি হয় ইউরোপের বাজারে। চীনে অল্পস্বল্প রফতানি হলেও এবার এর পরিমাণ বাড়তে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে দেশটি।
ইথিওপিয়ান কফি এক্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের তথ্য অনুযায়ী, এরই মধ্যে চীন দেশটি থেকে কফি আমদানি আগের তুলনায় বাড়িয়েছে। ২০১৮ সালে দেশটি থেকে চীন মোট চার হাজার টন কফি আমদানি করেছিল, যা আগের বছরের তুলনায় ১৬ শতাংশ বেশি।
প্রতিষ্ঠানটির মহাব্যবস্থাপক গিজা ওর্য়কু বলেন, রফতানিকারকরা চীনে কফি রফতানি বাড়াতে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। কারণ চীন পণ্যটির রফতানি বাড়ানোর ক্ষেত্রে উদীয়মান সুযোগ।
মার্কেট ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড প্রোমোশন অ্যাট দি ইথিওপিয়ান কফি অ্যান্ড টি অথরিটির পরিচালক তটেক গিরমা বলেন, ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র ও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো ইথিওপিয়ান কফির চিরাচরিত গন্তব্য। তবে দেশটি এখন অর্গানিক কফি রফতানিতে চীনের দিকেই বেশি নজর দিচ্ছে।
উল্লেখ্য, ইথিওপিয়ার সম্মিলিত বৈদেশিক আয়ের ৩০ শতাংশ আসে কফি খাত থেকে। এছাড়া দেশটির দেড় কোটি মানুষ জীবন ধারণের জন্য এ খাতের ওপর নির্ভরশীল।

ভাগ