চিকিৎসাও নিতে পারছে না কাশ্মিরীরা

দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে কারফিউ চলছে জম্মু ও কাশ্মিরে। সব ধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন রয়েছে সেখানে। ‘খাঁচাবন্দী’ কাশ্মিরে বাজারঘাট ও দোকানপাট সব বন্ধ। বন্ধ সব ধরনের পণ্য সরবরাহ। উপত্যকাজুড়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় অন্যান্য জিনিসের পাশাপাশি খাবার ও জীবনরক্ষাকারী ওষুধের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। হাসপাতাল, ফার্মেসি কোথাও ওষুধ নেই। খাবারের মজুদও শেষ হয়ে গেছে বাসিন্দাদের। ঘরে ঘরে হাহাকার ছড়িয়ে পড়েছে। অসুস্থ হয়ে পড়লেও চিকিৎসার সুযোগ দেয়া হচ্ছে না। জরুরি রোগীকে হাসপাতালে নিতে অ্যাম্বুলেন্স ডাকার ক্ষমতাও নেই।
ভারতের দ্য হিন্দু পত্রিকা জানায়, সেনা-পুলিশের পেলেট গান বা ছররা গুলিতে আহত গুরুতর রোগীদেরও হাসপাতালে নিতে দেয়া হচ্ছে না। এমনকি হাসাপাতালে যেতে পারছেন না চিকিৎসক ও কর্মীরাও। রোগী ও স্টাফরা যাতে সহজেই হাসপাতালে যেতে পারে সেজন্য দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে ভারত সরকারের কাছে যৌথ চিঠি লিখেছেন ১৮ জন চিকিৎসক। চিঠিতে তারা বলেছেন, মানুষ তাদের স্বজনদের হাসপাতালে নিতে পারছে না। অ্যাম্বুলেন্স ডাকতে পারছে না। রোগীকে হাসপাতালের নেয়ার চেষ্টা করলেও তাদের কয়েক মিটার পরপরই থামিয়ে দিচ্ছে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। পরিচয়সহ নানা প্রশ্ন করে হয়রানি করছে। শুধু রোগীয় নয় চিকিৎসক ও কর্মীদের হাসপাতালে যেতে বাধা দেয়া হচ্ছে। রোগীর জীবন বাঁচাতে শিগগিরই কারফিউ তুলে নিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার আবেদন জানিয়েছেন তারা।

ভাগ