চালক হয়েও ২ রানের আক্ষেপ মুশফিকের

ঘুরে দাঁড়ানোর ম্যাচেও প্রথম ম্যাচের রূপান্তর করলো বাংলাদেশ। গত ম্যাচের মতো মুশফিকুর রহিমই ছিলেন বাংলাদেশের চালক। ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার মাঝে একাই হাল ধারলেন দলের। তিন ম্যাচ অডিইআই সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে মুশফিকুর রহিমের অপরাজিত (৯৮) রানের ওপর ভর করে শ্রীলঙ্কাকে ২৩৯ রানের টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ। আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৩৮ রান করতে সংগ্রহ করে বাংলাদেশ।
রোববার কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টোডিয়ামে বিকেল ৩টায় (বাংলাদেশ সময়) শুরু হওয়া সিরিজের দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে সমতায় ফিরতে বাংলাদেশ এবং সিরিজ জয়ের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামে শ্রীলঙ্কা। টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন টাইগার অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ব্যাট করতে নেমে ১১৭ রানে ৬ উইকেট হারায় বাংলাদেশ । দেখে-শুনে শুরু করলেও ২৬ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। নুয়ান প্রদীপের এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে ১১ রান করে সাজঘরে ফেরেন সৌম্য সরকার। এরপর দলীয় ৩১ রানের মাথায় আরেক ওপেনার তামিম ইকবাল ফেরেন ইসুরু উদানার বলে বোল্ড হয়ে। তার উইলো থেকে আসে ১৯ রান।
পর পর দুই ওপেনারকে হারিয়ে চাপে পড়া দলকে টেনে তুলতে এসে ২৩ বলে ১২ রান করে ফিরে যান ওয়ানডাউনে নামা মোহাম্মদ মিথুন। মুশফিকই ব্যাটিংয়ের হাল ধরার চেষ্টা করেন। কিন্তু তার সঙ্গ দিতে এসে আসা-যাওয়ার মধ্যেই ছিলেন অন্য ব্যাটসম্যানরা। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৬, সাব্বির রহমান ১১ ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ১৩ রানে ফিরে গেলে কঠিন চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। সপ্তম উইকেটে মেহেদি হাসান মিরাজ দেখে-শুনে খেলে মুশফিককে সঙ্গ দেয়ার চেষ্টা করেন। মুশফিকুর ও মিরাজের ব্যাটে পথ খুঁজতে থাকে বাংলাদেশ। দুজনে জুটিতে তোলেন ৮৪ রান। ৪৯ বলে ৬ চারে ৪৩ রান করে মিরাজ আউট হন প্রদীপের বলে।
শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে মুশফিকুর রহিম করেন ১১০ বলে ৯৮ রান। ছয় চার ও এক ছক্কায় ইনিংসটি খেলেন মুশফিক। তবে দলের চালক হয়েও আফসোস থেকে গেলো ২ রানের জন্য সেঞ্চুর মিস করা মুশির। এই ম্যাচে বাংলাদেশ দলের তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচে ৬ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করলেন উইকেটরক্ষক কাম ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। তিন ম্যাচের অডিআই সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে মুশফিক তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের ৩৭তম অর্ধশতক। মাঠে নামার আগে মুশফিকের অডিআই রান ছিলো ৫৯৯২ রান। আজ সেটাকে ৬ হাজার ছাড়িয়ে নিয়ে গেলেন মি. ডিফেন্ডেবলখ্যাত মুশি। এখন তার রান ৬০৯০ রান। এর আগে বাংলাদেশের হয়ে ৬ হাজার রানের পূর্ণ করেন তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান। লঙ্কান বোলারদের মধ্যে নুয়ান প্রদীপ, ইসুরু উদানা ও ধনাঞ্জয়া প্রত্যেকে দুটি করে উইকেট শিকার করেন।

ভাগ