খুলনা-কলকাতা বাস সার্ভিস চালুর দাবি

খুলনা ব্যুরো ॥ হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাওয়া খুলনা-কলকাতা বাস সার্ভিস চালু এবং খুলনা-কলকাতা ট্রেন সার্ভিস সপ্তাহে তিন দিন করা ও নগরীতে বিএরটিসির দোতলা বাস চালুর দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে মহানগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা), খুলনা জেলা শাখা এ কর্মসূচির আয়োজন করে। নিসচা’র জেলা সভাপতি মো. হাছিবুর রহমান হাছিব কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন। প্রধান অতিথি ছিলেন নিসচা’র জেলা উপদেষ্টা ও সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম।
নিসচা’র জেলা সাধারণ সম্পাদক এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লবের পরিচালনায় বক্তৃতা করেন কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় নেতা শ্যামল সিংহ রায়, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব মিজানুর রহমান বাবু, এম এ কাশেম, মুক্তিযোদ্ধা শেখ মো. ইলিয়াস, বাগেরহাট জেলা ডেপুটি কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা শেখ আব্দুল জলিল, ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা শেখ মফিদুল ইসলাম, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন আন্দোলনের চেয়ারম্যান শেখ মো. নাসির উদ্দিন, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) বিভাগীয় সমন্বয়কারী মাহফুজুর রহমান মুকুল, লবণচরা টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান মোসলেহ উদ্দিন তুহিন, হেলাল হোসেন, আনোয়ারা পারভিন আক্তার পরি, ইশরাত আরা হীরা, মাহমুদা আক্তার লিজা, আনোয়ারা আক্তার পারভিন প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, দীর্ঘ ৫ মাস ধরে খুলনা-কলকাতা রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। সর্বশেষ খুলনা থেকে সরাসরি কলকাতা সৌহার্দযাত্রা করে ২০১৮ সালের ৪ অক্টোবর। এছাড়া ২০১৮ সালের ২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা-মাওয়া-গোপালগঞ্জ থেকে খুলনা হয়ে কলকাতাগামী শ্যামলী এন আর ট্রাভেলস চলাচল শুরু হয়। এ রুটে পরিবহনটি চালু হওয়ায় যাত্রীরা স্বল্প সময়ে কলকাতার উদ্দেশ্যে যাতায়াত করার সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু একই বছরের এপ্রিল মাসে বন্ধ হয়ে যায় এ পরিবহনটিও। ফলে দু’বাংলার যাত্রীরা আন্তর্জাতিক বাস সার্ভিস থেকে বঞ্চিত হওয়ার পাশাপাশি ভোগান্তির মধ্যে পড়েছেন।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, খুলনা-কলকাতা রুটে বাস চালুর মধ্য দিয়ে খুলনাসহ দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হয়েছিল। আর এর মাধ্যমে খুলনার যাত্রীদের কলকাতা গিয়ে কাজ সেরে আবার সে দিনেই ঘরে ফিরে আসার সুযোগ তৈরি হয়েছিল। নিরাপদ ও স্বাচ্ছন্দে রোগী, পর্যটক, ব্যবসায়ী কলকাতায় পৌঁছে যেতেন। এর মাধ্যমে দুই দেশের বাণিজ্য আরও বেশি সম্প্রসারণ ঘটছিল। এছাড়া বক্তারা খুলনা-কলকাতা ট্রেন সার্ভিস সপ্তাহের একদিনের পরিবর্তে তিনদিন করা ও খুলনা মহানগরীতে বন্ধ বিআরটিসির দোতলা বাস চালুর দাবি জানান।

ভাগ