খালেদা জিয়া ন্যায়বিচার না পেলে আইনজীবীরা রাজপথে নামবে : খন্দকার মাহবুব

লোকসমাজ ডেস্ক।। জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের আহ্বায়ক ও সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ন্যায় বিচার না পেলে আইনজীবীরা রাজপথে নামবে এবং রাজপথকে উত্তপ্ত করবে। সোমবার সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির ভবনের সামনে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এ বক্তব্য দেন।
জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের আহবায়ক খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, আজকের এই সমাবেশ বিচার বিভাগের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা নয়। আমাদের প্রতিবাদ বর্তমান বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেলের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে।
তিনি বলেন, বিচার বিভাগ থেকে আমাদের যে বিচার পাওয়ার কথা ছিল- তা অ্যাটর্নি জেনারেলের কারসাজিতে পাচ্ছি না।
তিনি বলেন, সর্বোচ্চ আদালত মেডিক্যাল রিপোর্ট চেয়েছে। যথাসময়ে সেই রিপোর্টও এসেছে; কিন্তু অ্যাটর্নি জেনারেল অত্যন্ত জঘন্যভাবে আদালতে সেটা উপস্থাপন না করে বলে গেছেন রিপোর্ট আসেনি। আমি মনে করি, তিনি সর্বোচ্চ আদালতের প্রতি অবমাননা করেছেন।
খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, আমরা এখনো বিশ্বাস করি আমাদের বিচার বিভাগ বিশেষ করে সুপ্রিমকোর্ট ন্যায় বিচার করবেন, আইনের শাসন কায়েম থাকবে। সেই জন্যই আজকের এই সমাবেশ।
তিনি বলেন, এই সমাবেশ আদালতের উপর চাপ সৃষ্টির কোন সমাবেশ না। এই সমাবেশ খালেদা জিয়ার মুক্তির সমাবেশও না। আমরা চাই ন্যায় বিচার।
এ সময় তিনি পাকিস্তানের উদাহরণ দিয়ে বলেন, আমরা আশে পাশে দেশের দিকে তাকাই, তখন দেখি সাজাপ্রাপ্ত অবস্থায়ও নওয়াজ শরীফকে হেলিকপ্টারে করে বিদেশে পাঠানো হয়েছে। লালু প্রসাদকেও সুপ্রিমকোর্ট থেকে জামিন দেওয়া হয়েছিল। সেখানে যারা আইন উপদেষ্টা ছিলেন তারা বিচার বিভাগকে বিভ্রান্ত করেন নাই।
আমি এখনো মনে করি সেই আমাদের অ্যাটর্নি জেনারেল সর্বোচ্চ আদালতকে বিভ্রান্ত করেছে। সেদিন তিনি সঠিক ব্যবস্থা নিতেন তাহলে আজকের এই অবস্থার সৃষ্টি হতো না। বাংলাদেশের সর্বস্তরে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করার জন্য আইনজীবী সমাজ অতীতেও ছিল। আজও সেই অবস্থানে আছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন- সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি জয়নুল আবেদীন, সাবেক মন্ত্রী নিতাই রায় চৌধুরী, সুপ্রিম কোর্ট বারের সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, তৈমুর আলম খন্দকার, গিয়াস উদ্দিন আহমদ, বদরুদ্দোজা বাদল, আবেদ রাজা, রুহুল কুদ্দুস কাজল, কামরুল ইসলাম সজল, ড. এম এম ওয়াছেল উদ্দিন বাবু, এবিএম রফিকুল হক তালুকদার রাজা, আইয়ুব আলী আশ্রাফী, গোলাম আক্তার জাকির প্রমুখ।

ভাগ