কোটচাঁদপুরে রাস্তা খুঁড়ে ফেলে রাখায় মানুষের ভোগান্তি চরমে

0

 

 

 

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) সংবাদদাতা ॥ সড়ক উন্নয়ন কাজের নামে তিন মাস ধরে রাস্তা খুঁড়ে ফেলে রাখার অভিযোগ উঠেছে। এর ফলে প্রায় পৌনে তিন কিলোমিটার রাস্তা হাঁটু সমান কাদাপানি মাড়িয়ে প্রতিনিয়ত চলাচল করতে হচ্ছে পাঁচটি গ্রামের মানুষের। এ অবস্থার কারণে মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে।
জানা গেছে, কোটচাঁদপুর উপজেলার রাজাপুর গ্রাম থেকে সাবদালপুর পর্যন্ত রাস্তা উন্নয়নের কাজ পায় কুষ্টিয়ার সৈকত এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। যার ব্যয় ধরা হয় ২ কোটি ৫ লাখ ৬৪ হাজার টাকা। গত রোজার প্রথম দিকে রাস্তাটির ইট তুলে পৌনে তিন কিলোমিটার রাস্তা খুঁড়ে রাখা হয়। সেই থেকে এ পর্যন্ত রাস্তাটি একই অবস্থায় পড়ে আছে। চলতি বর্ষা মৌসুমে রাস্তাটিতে কাদাপানি জমে খালে পরিণত হয়েছে। কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীরা প্রতিনিয়ত সেই কাদাপানি মাড়িয়ে যাচ্ছে স্কুল-মাদ্রাসায়। অনেকে পড়ে গিয়ে কাদাপানিতে বই খাতা জামাকাপড় নষ্ট করে বাড়ি ফিরছে। জীবিকার টানে এলাকাবাসী একমাত্র এই রাস্তাটি দিয়েই চলাচল করছে বহু কষ্ট করে। অথচ এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট বিভাগের মাথা ব্যথা নেই।
সাবদারপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান বলেন, রাস্তাটি খুঁড়ে রাখায় মানুষের ভোগান্তি চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। তিনি বলেন, ‘আমি ঠিকাদারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেছি, কিন্তু তাকে পাইনি।’
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী রুহুল ইসলাম বলেন, ‘কাজটি শেষ করার জন্য আমি ঠিকাদারের সাথে কথা বলেছি। স্থানীয়ভাবে এখানে বালি মাটির সংকট থাকায় তারা কাজটি করতে পারছেন না।’ তবে দ্রুতই ঠিকাদার কাজটি শেষ করবেন বলে তিনি জানান।

Lab Scan