কোটচাঁদপুরে দুই সপ্তাহে ৫ বার পান বরজে আগুন নাশকতা না দুর্ঘটনা?

0

আসিফ কাজল, ঝিনাইদহ॥ ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার জালালপুর গ্রামে পানের বরজে একের পর আগুন পান চাষিদের ভাবিয়ে তুলেছে। গ্রামটিতে দুই সপ্তাহর ব্যবধানে ৫ বার আগুন লেগেছে। পুড়ে গেছে ২৫ বিঘা জমির পান। ঘন ঘন আগুন লাগায় এ নিয়ে পান চাষিদের মাঝে নানা প্রশ্ন দেখা দিযেছৈ। তথ্য নিয়ে জানা গেছে, গত ১২ ফেব্রয়ারি আগুন লেগে জালালপুর গ্রামের সুধির দাসের ছেলে গৌতম দাসের ২৫ কাটা ও নরোত্তম দাসের ১০ কাঠা, মৃত নলিনী কান্ত দাসের ছেলে সিন্ধু দাসের ৭ কাঠা, অরবিন্দু দাসের ৭কাঠা, বিশ্বজিত দাসের ১৫ কাঠা, শ্যামাপদ দাসের ছেলে পলাশ দাসের ১১০ কাঠা, ফকির চাঁদ মন্ডলের ছেলে শাহাজান আলীর ১০ কাঠা, রমজান আলীর ছেলে টিক্কা খানের ১০ কাঠা, মৃত আখের মন্ডলের ছেলে চিনিরুদ্দিনের ৫ কাঠা, আরশেদ আলীর ছেলে চাঁদ আলীর ৫ কাঠা, চাঁদ আলীর ছেলে আখতারের ১০ কাঠা, সলেমান মন্ডলের ছেলে আমির হোসেনের ১২ কাঠা, আনিছুর রহমানের ১২ কাঠা, মিজানুর রহমানের ১৮ কাঠা ও অবনি দাসের ছেলে নিশিত দাসে ১০ কাঠা জমির পান ক্ষেত ভষ্মিভূত হয়। এর আগে গত ১১ ফেব্রয়ারি হরিপদ পরামানিকের ছেলে সঞ্জয় পরামানিকের ৪ কাঠা ও সুজন পরামানিকের ৪ কাঠা পানের বরজ পুড়ে যায়। গত ৯ ফেব্রয়ারি সন্যাসী দাসের ছেলে জগবন্ধু দাসের ৫ কাঠা পানের বরজ পুড়ে যায়। জানুয়ারি মাসের ২১ তারিখ ভরসা মন্ডলের ছেলে সুবাহান মন্ডলের ৩৩ কাঠা বরজ পুড়ে যায়। ২৪ জানুয়ারি সুবাহান মন্ডলের ছেলে সোহাগ আলীর ৩৩ কাঠা, আফান মন্ডলের ছেলে পান্টু মন্ডলের ১০ কাঠা, মন্টু মন্ডলের ১০ কাঠা এবং আখের মন্ডলের ছেলে মুরাদ আলীর ১০ কাঠা জমির পান পুড়ে ধ্বংস হয়। এই বিষয়ে কুশনা ইউপির চেয়ারম্যান শাহারুজ্জামান বলেন, দুই সপ্তাহের মধ্যে ৫টি আগুনের ঘটনা আসলেই রহস্যজনক। তিনি বলেন বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে কেউ ইচ্ছা করে আগুন লাগিয়েছে কিনা। কুশনা ইউনিয়ন পরিষদের ৩ ওয়ার্ডের মেম্বার জীবন কুমার হালদার জানান, একই মাঠে কেন একের পর আগুন লাগছে তা নিয়ে রহস্য দেখা দিয়েছে। কোটচাঁদপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ মহাসীন আলী জানান, আমরাও এই বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন। কৃষকরা সন্দেহাভাজন কারও নামে অভিযোগও করতে চায় না। অভিযোগ করলে তদন্তে সুবিধা হয়।

Lab Scan