কালীগঞ্জে বিএনপির ৭২ নেতাকর্মীর নামে মামলা : বাবাকে না পেয়ে ছেলেকে আটক

0

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) সংবাদদাতা ॥ বিএনপির তিন দিনের অবরোধ ঘিরে কালীগঞ্জে পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। এতে বিএনপির ৭২ জনকে আসামি করা হয়েছে। গ্রেফতার আতঙ্কে রয়েছেন নেতাকর্মীরা।
এদিকে ছেলেকে না পেয়ে বাবাকে আটক ও বিনা ওয়ারেন্টে নেতাকর্মীদের আটক করার অভিযোগ করেছে বিএনপি। গ্রেফতার ভয়ে নেতাকর্মীরা গা ঢাকা দিয়েছেন । জানা গেছে, থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়। একটি মামলার বাদী পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শামিমুর রহমান ও অন্যটির বাদী থানার এসআই প্রতিক কুমার। সোমবার রাতে দায়ের হওয়া মামলায় ৩১ জন ও অপরটিতে ৪১ জনের নাম উল্লেখ করা হয়।
বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, উপজেলার কোলা ইউনিয়নের তেঘরিহুদা এলাকা থেকে ইউনিয়ন ছাত্রদল সভাপতি আরিয়ান খান সুমনকে বাড়িতে না পেয়ে তার বাবা আবজাল হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। আটক আবজাল হোসেন একজন দোকানি। তার বাড়িতে তিনবার তল্লাশি করা হয়। তাকে বুধবার দায়ের করা মামলায় আটক দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। কালীগঞ্জ উপজেলার বারবাজার, কোলাবাজার, নিয়ামতপুর, রাখালগাছি, রায়গ্রাম, সিংদহ, কালুখালী, নলডাঙ্গা, মালিয়াট , বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে গভীর রাতে বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
যুবদলের সদস্য সচিব মিলন বলেন, বাড়ি থেকে বিনা ওয়ারেন্টে নেতাকর্মীদের আটক করা হচ্ছে । দুটি মামলায় উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম সাইদুল, ইলিয়াস রহমান মিঠু, পৌর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক জবেদ আলী, যুগ্ম আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন, উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব মৌসুম উদ্দিন শোভন, পৌর ছাত্রদলের আহ্বায়ক জুয়েল রানা, সদস্য সচিব তরিকুল ইসলাম, সাবেক চেয়ারম্যান আলী মোর্তুজা লিটু, উপজেলা যুবদলের সদস্য সচিব মাহাবুবুর রহমান মিলন, কাউন্সিলর আশরাফুজ্জামান রনিসহ ৭২ জনকে আসামি করা হয়েছে।
ঝিনাইদহ-৪ আসনের বিএনপির মনোনয়নপ্রাত্যাশী হামিদুল ইসলাম হামিদ বলেন, ওসি ঘটনা তদন্ত না করে কীভাবে আওয়ামী লীগের নেতাদের দায়েরকৃত মিথ্যা গায়েবি মামলা গ্রহণ করলেন সেটা বোধগম্য নয়। আওয়ামী লীগের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে এ মিথ্যা মামলা এজাহারভুক্ত করা হয়েছে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে পুলিশ মিথ্যা ও গায়েবি মামলায় নিরপরাধ নেতাকর্মীদের আটক করছে বলেও দাবি করেন তিনি।
কালীগঞ্জ থানার ওসি মাহাবুবুর রহমান জানান, থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ সর্বোচ্চ সতর্কতার সঙ্গে কাজ করছে।

 

Lab Scan