কারাগার দখলে নিয়ে বন্দিদের মুক্ত করল তালেবান

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় জাউজান প্রদেশের শেবার্গান শহরের একটি কারাগার দখলে নিয়ে সেখানের সব বন্দিকে ছেড়ে দেয়ার দাবি করেছে তালেবান। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, বিদ্রোহীরা হামলা চালানোর পর ওই কারাগার থেকে শত শত বন্দি পালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া, শহরটি দখলে নিয়ে তালেবান তাদের দ্বিতীয় আঞ্চলিক রাজধানীতে পরিণত করেছে। শনিবার (৭ আগস্ট) বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
শেবার্গান সাবেক আফগান প্রেসিডেন্ট আবদুল রশিদ দস্তুমের শক্ত ঘাঁটি হওয়ায় তার সমর্থকরা সেখানে তালেবানের বিরুদ্ধে যুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছে। স্থানীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, আফগান সরকারকে সহযোগিতা করার জন্য দেশটির বিভিন্ন এলাকা থেকে ১৫০ জনের বেশি শহরটিতে গেছে তালেবানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্য। অঞ্চলটির কাউন্সিল প্রধান বাবর এশচি বিবিসি’কে জানিয়েছেন, তালেবানরা একটি সেনাঘাঁটি ছাড়া সব জায়গা দখল করেছে, যদিও সেখানে উভয়পক্ষের মধ্যে তীব্র লড়াই চলছে। দেশটির অন্যান্য অংশেও সহিংসতা বাড়ছে, তালেবান দ্রুতগতিতে বিভিন্ন এলাকা দখলে নিচ্ছে। এতে হাজার হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে।
এছাড়া, আরও দুটি প্রাদেশিক রাজধানী তালেবানের হামলার মুখে খুবই নাজুক অবস্থায় রয়েছে। এর একটি পশ্চিমের হেরাত এবং অপরটি দক্ষিণের লস্কর গাহ। জারাঞ্জ হচ্ছে ইরান সীমান্তের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ এক বাণিজ্য কেন্দ্র। এই শহরের চারিদিকের এলাকা দখল করে নেয়ার পর তালেবান আরও সামনে অগ্রসর হচ্ছে। আফগানিস্তানের অধিকাংশ অঞ্চল তালেবানের দখলে চলে যাওয়ায় এবং পরিস্থিতির চরম অবনতি হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য তাদের নাগরিকদের দেশটি ছাড়ার আহ্বান জানিয়েছে। দেশজুড়ে যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ায় তালেবানকে মোকাবিলা সরকারি বাহিনীর জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রসঙ্গত, আফগানিস্তান থেকে বিদেশি সৈন্য প্রত্যাহার করার পর থেকেই তালেবান সেখানে বেশ দ্রুতগতিতে বিভিন্ন এলাকা দখল করতে শুরু করে। তালেবান এরই মধ্যে আফগানিস্তানের বিস্তীর্ণ গ্রামীণ এলাকা দখল করে নিয়েছে। এখন তারা বড় বড় শহর টার্গেট করছে।

Lab Scan