করোনা কেড়ে নিল নিউইয়র্ক প্রবাসী যশোরের সোহাগকে

লোকসমাজ ডেস্ক॥ করোনা ভাইরাসের সাথে গত ১০দিন ধরে যুদ্ধ করে হেরে গেলেন যশোরের কৃতি সন্তান নিউইয়র্ক প্রবাসী মির্জা বদরুল হুদা সোহাগ (৪৪) (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি রোববার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক সময় ৬.১০ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টা) এলমাস্ট হসপিটালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী ও দুই সন্তান বৃদ্ধ মা, ভাই বোনসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তার মৃত্যুর সংবাদে নিউইয়র্ক প্রবাসীদের মাঝে শোকের ছায়া বিরাজ করছে।
মরহুমের জানাযা নামাজের সময় পরবর্তীতে জানানো হবে ইনশাআল্লাহ। নিউইয়র্ক থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন আন-নূর কালচারাল সেন্টারের প্রিন্সিপাল মুফতি মুহাম্মদ ইসমাইল। নিউইয়াক থেকে প্রাপ্ত সংবাদে তার পরিবারের সদস্যরা জানান, গত ১৫ মার্চ থেকে সোহাগ ও তার স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হয়ে হোম কোয়ারিন্টাইনে ছিলেন। ২২ মার্চ ভোরে তার শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে স্ত্রী এলমাস্ট হাসপাতালে ভর্তি করেন ওই দিন থেকেই সোহাগ লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। গত ২৩ মার্চ তার অবস্থার অবনতি হলে ডাক্তাররা জরুরী ভিত্তিতে তার ভেন্টিলেশন ও কিডনি ডায়ালাইসিস এর ব্যবস্থা করেন।এরপর তার অবস্থার উন্নতি হলে সাধারন ওয়ার্ডে শিফট করা হয়। এরমাস্ট হাসপাতাল কতৃপক্ষ আষা করছিলেন সোহাগ সুস্থ হয়ে উঠবেন।কিন্তু তাদেও সব আশা নিরাশায় পরিণত হলো আজ সন্ধ্যা ৬টায়।
বন্ধুপ্রতীম ও পরোপকারী ব্যাক্তি হিসাবে তিনি দেশে ও বিদেশে সকলের কাছে পরিচিত। তার বাড়ি যশোর শহরের আরবপুর পাওয়ার হাউজ এলাকায়। ১৯৯১ সালে নতুন খয়েরতলা মাধ্যমিক স্কুল থেকে এসএসসি এবং ১৯৯৩ সালে ক্যান্টনমেন্ট কলেজ যশোর থেকে এইচএসসি পাস করেন। পরবর্তীতে ক্যান্টমেন্ট কলেজ থেকে হিসাব বিজ্ঞানে গ্র্যাজুয়েশন শেষ করে তিনি ১৯৯৮ সালে আমেরিকায় চলে যান এবং সেখানে স্ত্রী, কন্যা ও পুত্র নিয়ে বসবাস করেন। মির্জা হুদা সোহাগ নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত একমাত্র দৈনিক বাংলা সংবাদ মাধ্যম “বিডিনিউজ.লাইভ ” এর এডিটর ইন চিফ, এ ছাড়া তিনি ” আ্যড এন্ড টেক” নামে একটা সফটওয়্যার কোম্পানির ও কর্নধার। তার পরিবার ও বিডিনিউজ লাইভের পরিবারের পক্ষ থেকে তার বিদেহী আত্মার জন্য দোয়া কামনা করা হয়েছে। এদিকে মির্জা বদরুল হুদা সোহাগের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনাসহ শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন বিবৃতি দিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির খুলনা বিভাগীয় কমিটির সহ-সাংগঠণিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত।

ভাগ