করোনায় সাবেক কাস্টমস ইন্সপেক্টরের মৃত্যু, দাফন করলো প্রশাসন

এস আর সেলিম, দৌলতপুর (কুষ্টিয়া)॥ সাবেক কাস্টমস ইন্সপেক্টর আব্দুল কুদ্দুস (৬৭) করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে তিনি ঢাকার মুগদা হাসপাতালে মারা যান। তিনি রাজধানীর রামপুরা বনশ্রী এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। সাবেক কাস্টমস কর্মকর্তা আব্দুল কুদ্দুসের বাড়ি কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার ফিলিপনগর ইউনিয়নের মণ্ডলপাড়া গ্রামে। এখানে তার লাশ দাফনের বিষয়ে এলাকাবাসী আপত্তি জানানোয় এ নিয়ে উত্তেজনা দেখা দেয়। বুধবার ভোরের দিকে দৌলতপুর উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা লাশ দাফন করেন।
জানা যায়, সপ্তাহখানিক আগে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগের সাবেক ইন্সপেক্টর আব্দুল কুদ্দুস। রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে তিনি মারা যান। ওইদিন রাত সাড়ে ১০টায় ঢাকা থেকে তার মরদেহ নিয়ে দৌলতপুরের উদ্দেশে রওনা দেন পরিবারের সদস্যরা। বুধবার (২৭) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে গ্রামের বাড়িতে মরদেহ এসে পৌঁছায়। এর আগেই বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত হন। এরপর স্বল্প সময়ের আনুষ্ঠানিকতায় প্রশাসনের কর্মকর্তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন সস্পন্ন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজগর আলী, দৌলতপুর থানার ওসি এসএম আরিফুর রহমান, পুলিশের দুজন এসআই, পাঁচজন কনস্টেবল ও দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন চিকিৎসক ছাড়াও মরহুমের পুত্র সিপার আহমেদ ও তার ভায়ের ছেলে সজিব আহমেদসহ মোট ১৩ জন। ইসলামী ফাউন্ডেশনের প্রতিনিধি জানাজা নামাজ পড়ান।
এদিকে কাস্টমস কর্মকর্তা আব্দুল কুদ্দুসের নিজ গ্রামে তার লাশ দাফনের ঘটনায় এলাকাবাসী বাধা দেয়ার চেষ্টা করেন। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দিলে পুলিশ তাদের নিবৃত করে। পরে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজগর আলী, দৌলতপুর থানার ওসি এসএম আরিফুর রহমান নিজ হাতে লাশ কবরস্থ করেন। দৌলতপুর থানার ওসি এসএম আরিফুর রহমান জানান, আব্দুল কুদ্দুস কাস্টমস বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত ইন্সপেক্টর ছিলেন। ঢাকার বাড়িতেই থাকতেন। সপ্তাহখানিক আগে তার শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে। রাজধানীর মুগদা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে তিনি মারা যান। ঝড়বৃষ্টি উপেক্ষা করে আমরা ফিলিপনগরের মণ্ডলপাড়া গ্রামে উপস্থিত হই। সহকারী কমিশনার (ভূমি), নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আজগর আলী জানান, ঢাকায় অবস্থানকালে সাবেক কাস্টমস কর্মকর্তা আব্দুল কুদ্দুস করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন। চিকিৎসারত অবস্থায় ব্রেন স্ট্রোক করে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর আগে তিনি নিজ গ্রামে দাফনের জন্য ইচ্ছা পোষণ করেন। তার শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী জেলা প্রশাসকের নির্দেশে ঘণ্টাখানিকের আনুষ্ঠানিকতায় এই দাফন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। এসিল্যান্ড আজগর আলী বলেন, এর আগে লাশ দাফনকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছিল। অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে আমরা নির্ঘুম রাত কাটিয়েছি। ভোর সাড়ে ৫টার দিকে আমরা লাশ রিসিভ করি।

ভাগ