এসএ গেমস ক্রিকেটে এবার সোনা অর্জন ছেলেদের

স্পোর্টস ডেস্ক ॥ ফাইনালের পোশাকি লড়াই শঙ্কা জাগালেও সোনা জয়ের ম্যাচে প্রতিপকে দাঁড়াতেই দিল না বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-২৩ দলকে অল্প রানে বেঁধে রাখলেন বোলাররা। ছোট ল্য তাড়ায় ব্যাটসম্যানরা এনে দিলেন সহজ জয়। কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মাঠে ফাইনালে সোমবার শ্রীলঙ্কাকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। আগে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে লঙ্কানরা তুলেছিল ১২২ রান। টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তায় ১১ বল হাতে রেখেই ম্যাচ জিতে যায় বাংলাদেশ। অপরাজিত ৩৫ রানের ইনিংসে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। ওপেনার সাইফ হাসান করেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৩ রান।
রান তাড়ায় দলকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ওপেনার সাইফ হাসান ও সৌম্য সরকার। উদ্বোধনী জুটিতে ৭.৫ ওভারে ওঠে ৪৪ রান। ২৮ বলে চারটি চারে ২৭ রান করা সৌম্যকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন কামিন্দু মেন্ডিস।
অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্তর সঙ্গে সাইফের ২২ বলের দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে আসে ৩৯ রান। শুরুতে দেখেশুনে খেললেও এই জুটিতে সাইফ ছিলেন আগ্রাসী। সাচিন্দু কলম্বাগের টানা দুই বলে দুটি ছক্কা মারেন তিনি। রান আউট হওয়ার আগে ৩০ বলে তিনটি চার ও দুই ছক্কায় সাইফ করেন ৩৩ রান। ১৬ বলে একটি করে ছক্কা ও চারে ১৯ রান ইয়াসির আলীর ফেরার সময় দল জয় থেকে ১৫ রান দূরে। আফিফ হোসেনকে নিয়ে বাকি কাজটা সারেন অধিনায়ক শান্ত। তার ২৮ বলের ইনিংসে ছিল দুটি চার ও একটি ছক্কা। এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা লঙ্কানদের শুরুটা ছিল ঝড়ের গতিতে। দুই ওপেনার পাথুম নিসানকা ও নিশান মাদুশকা ৪ ওভারে তোলেন ৩৩ রান। ২২ রান করে নিসানকার রান আউট হওয়ার পরই বদলে যায় চিত্র। আগের ম্যাচে বাংলাদেশের বিপে ঝড়ো ব্যাটিং করা লাসিথ ক্রুসপুল ও অলরাউন্ডার কামিন্দু মেন্ডিসকে এক ওভারেই ফেরান হাসান মাহমুদ। পেসার সুমন খানের শিকার মাদুশকা। পরে দুই স্পিনার তানভির ইসলাম ও মেহেদি হাসানও উইকেট শিকারে যোগ দিলে শ্রীলঙ্কা উইকেট হারাতে থাকে নিয়মিত বিরতিতে। শাম্মু আশানের ২০ বলে ২৫ রান কিছুটা এগিয়ে নিয়েছিল দলকে। সৌম্য সরকারের করা ইনিংসের শেষ ওভারে ১২ রান এলে লঙ্কানদের রান ছাড়ায় ১২০। ১৮ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন পেসার হাসান মাহমুদ। এবারের এসএ গেমসে এই নিয়ে বাংলাদেশের সোনার পদক হলো ১৯টি। মেয়েদের ক্রিকেটেও শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ।

ভাগ