এলমা হত্যা মামলার রিমান্ড শুনানিতে পরীমনি প্রসঙ্গ

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) নৃত্যকলা বিভাগের ২০১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী এলমা চৌধুরীর (২৪) মৃত্যুর ঘটনায় বনানী থানায় করা হত্যা মামলায় স্বামী ইফতেখার আবেদীনের তৃতীয় দফায় ফের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। বুধবার (২২ ডিসেম্বর) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাতুল রাকিবের আদালত শুনানি শেষে রিমান্ডের আদেশ দেন। এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বনানী থানার সাব-ইন্সপেক্টর সালাউদ্দিন মোল্লা দুই দফায় ৫ দিনের রিমান্ড শেষে আসামিকে আদালতে হাজির করে ফের তিন দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।
আসামির পক্ষে অ্যাড. জিল্লুর রহমান রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন। শুনানিতে তিনি বলেন, ‘ইফতেখারকে এর আগে ৫ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। আজকে আবার ৩ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে। গত ১৯ ডিসেম্বর রিমান্ড আবেদন যা বলা হয়েছিল আজও একই কথা বলা হয়েছে। কোন পার্থক্য নেই। ৫ দিন রিমান্ডে থাকার পরও কোনো তথ্য উদঘাটন হয়নি। হবে কীভাবে, তাকে (এলমা) তো হত্যা করা হয়নি। তিনি আত্মহত্যা করেছেন। এখানে মিডিয়া ট্রায়াল চলছে। মিডিয়া ট্রায়ালের কথা বিবেচনা করে বার বার রিমান্ড আবেদন করা হচ্ছে। বিজ্ঞ আদালত বিষয়টি বিবেচনা করবেন।’ তিনি বলেন, ‘আমরা দেখেছি কিছুদিন আগে চিত্রনায়িকা পরীমনিকে বার বার রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। এমন আদেশ দেয়ায় হাইকোর্ট দুই জন বিচারককে শোকজ করেন। এখানে দেখছি ইখতেখারকে সেভাবেই রিমান্ডে নেয়া হচ্ছে।’ জিল্লুর রহমান বলেন, ‘ঘটনার তিন দিন আগে ইফতেখার দেশে আসেন। স্ত্রীকে নিয়ে ঘোরাফেরা করেন। তাদের মাঝে হৃদ্যতা, ভালোবাসা ছিল। কেন তিনি স্ত্রীকে খুন করবেন। যদি খুনই করবেন তাহলে ওই রুম ভেতর থেকে কেন লক করা থাকবে। দরজা ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করতে হয়। তাহলে কীভাবে তাকে হত্যা করবে।’ ইফতেখার ঘটনার সাথে জড়িত না। তাছাড়া তিনি অসুস্থ। সবকিছু বিবেচনায় তার রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন প্রার্থনা করছি। বাদীপক্ষে অ্যাড. তুহিন রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থনা করেন। তিনি বলেন, ‘নৃশংসভাবে এলমাকে হত্যা করা হয়। এর আগে লেখাপড়া বন্ধ না করায় তাকে নির্যাতনও করা হয়েছিল। আসামি একজন নারী নির্যাতনকারী। তার রিমান্ডের প্রার্থনা করছি।’ উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত ইফতেখারের আবারও দুই দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন। এর আগে গত ১৫ ডিসেম্বর তার তিন দিন এবং ১৯ ডিসেম্বর দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

Lab Scan