এবার সাইপ্রাসে আবির্ভূত ডেল্টাক্রন, জেনে নিন নতুন ভ্যারিয়েন্ট সম্পর্কে

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ ফ্রান্স ‘IHU’ ভ্যারিয়েন্ট আবিষ্কারের ঘোষণা করার মাত্র দিনকয়েকের মধ্যেই সাইপ্রাসে আরেকটি নতুন করোনভাইরাসের ভ্যারিয়েন্ট আবির্ভূত হয়েছে, নাম ডেল্টাক্রন। যার মধ্যেই ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট-এর অনুরূপ জেনেটিক পটভূমি রয়েছে, সেইসাথে ওমিক্রন থেকে কিছু মিউটেশন সম্পৃক্ত হয়েছে। যদিও এখন পর্যন্ত, নতুন ভ্যারিয়েন্ট-এর বৈজ্ঞানিক নাম ঘোষণা করা হয়নি। ফরাসি ভ্যারিয়েন্ট ‘IHU’ -এর মতো এটি নিয়ে এই মুহূর্তে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।
ডেল্টাক্রন সম্পর্কে কিছু তথ্য
এখনও পর্যন্ত সাইপ্রাসে নেয়া ২৫টি নমুনায় মোট ১০টি-তে ডেল্টাক্রন পাওয়া গেছে। সাইপ্রাস মেলকে উদ্ধৃত করে জেরুজালেম পোস্ট জানিয়েছে, ভাইরাস আক্রমণের কারণে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া লোকদের থেকে ১১টি নমুনা এসেছে, বাকি ১৪টি এসেছে সাধারণ জনগণের কাছ থেকে। University of Cyprus-এর Biotechnology and Molecular Virology বিভাগের প্রধান Leondios Kostrikis সংবাদমাধ্যমকে এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ‘ওমিক্রন এবং ডেল্টার সংমিশ্রণে এক নয়া ভ্যারিয়েন্টের হদিশ মিলেছে। এরমধ্যে ওমিক্রনের নানা বৈশিষ্ট্য রয়েছে এবং জিনোমের মধ্যে ডেল্টার মিল রয়েছে।’ Kostrikis এবং তাঁর টিম এমন ২৫টি কেস লক্ষ্য করেছেন। এই নমুনাগুলি GISAID-এ পাঠানো হয়েছে। এর বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে খুব দ্রুতই জানা যাবে। Kostrikis জানাচ্ছেন ,হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের মধ্যে মিউটেশনের ফ্রিকোয়েন্সি বেশি ছিল এবং এর জন্য নতুন ভ্যারিয়েন্ট দায়ী হতে পারে বলে তিনি মনে করেন।
Kostrikis জানিয়েছেন, ‘ডেল্টাক্রন’ কতটা ভয়ঙ্কর হতে পারে সে বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কিছু স্পষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। তবে এটির সংক্রমণের হার ওমিক্রনের মতো আবার আক্রমণ করার ক্ষমতা ডেল্টার মতো। যদি সত্যিই এমনটা হয় তাহলে আগামীদিনে ভয়াবহ অবস্থা হতে পারে। ডেল্টা ভয়ঙ্কর হলেও সেই পরিমাণ সংক্রামক ছিল না। এদিকে ওমিক্রন খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়লেও ততটা ভয়ঙ্কর নয়। কিন্তু যদি ‘ডেল্টাক্রন’ আছড়ে পড়ে তাহলে পরিস্থিতি কোন দিকে যেতে পারে তা বোঝা যাচ্ছে না। যদিও সাইপ্রাসের স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিচালিস হাদজিপানডেলাস বলেছেন, নতুন ভ্যারিয়েন্টটি নিয়ে এই মুহূর্তে উদ্বেগের কিছু নেই। সেই সঙ্গে নতুন এই আবিষ্কারের জন্য দেশের বিজ্ঞানীদের প্রতি গর্ব অনুভব করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। হাদজিপানডেলাস বলেছেন, “ডক্টর কোস্ট্রিকিসের দলের যুগান্তকারী গবেষণা এবং ফলাফল আমাদের গর্বিত করেছে। এই গবেষণাটি স্বাস্থ্যের বিষয়ে সাইপ্রাসকে আন্তর্জাতিক মানচিত্রে তুলে এনেছে। ” কিন্তু হিন্দুস্তান টাইমসের একটি প্রতিবেদন অনুসারে, ভাইরোলজিস্ট টম পিকক সোশ্যাল মিডিয়ায় বলেছেন যে, ডেল্টাক্রন একটি করোনার ভ্যারিয়েন্ট নাও হতে পারে, এটি সম্ভবত দূষণের ফল। তাঁর মতে , যখন নতুন ভ্যারিয়েন্টগুলির সিকোয়েন্সিং ল্যাবের মাধ্যমে আসে, তখন দূষণের সংস্পর্শে আসা অস্বাভাবিক ঘটনা নয়। তবে এই বিষয়টি প্রায়শই মিডিয়া দ্বারা প্রকাশ করা হয় না। রিকম্বিন্যান্টগুলির ওপর নজরদারি করলে শেষ পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে পাওয়া যাবে, ডেল্টাক্রন আসলে দূষণের ফল , জানিয়েছেন ভাইরোলজিস্ট টম পিকক।
সূত্র : www.firstpost.com

Lab Scan