ইমরানের রিমান্ড মঞ্জুর : কুখ্যাত কসাই মনিকে ধরতে অভিযান

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর শহরের পূর্ব বারান্দীপাড়া বউবাজার এলাকা থেকে বিদেশি পিস্তলসহ আটক ইমরান হোসেনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। বৃহস্পতিবার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক গৌতম মলিক তার একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতয়ালি থানা পুলিশের এসআই সাইফুল মালেক আদালতে তার ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়েছিলেন। এদিকে এ মামলার অপর আসামি কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী ও অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী কসাই মনিকে ধরতে গত বুধবার রাতে অভিযান চালায় পুলিশ। কিন্তু তাকে আটক করতে পারেনি। কুখ্যাত এই মাদক ব্যবসায়ী এলাকায় ইয়াবা ট্যাবলেটের কারবারের একটি সিন্ডিকেট পরিচালনা করে আসছে। এ সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলেছে।
গত বুধবার সকালে কোতয়ালি পুলিশ পূর্ব বারান্দীপাড়া বউবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইমরান হোসেন নামে ওই যুবককে ৩ রাউন্ড গুলিভর্তি একটি নাইন এম এম পিস্তলসহ আটক করে। সে ওই এলাকার মতলেব হোসেনের ছেলে। আটকের পর সে পুলিশের কাছে স্বীকার করে যে, পিস্তলের মালিক বারান্দীপাড়া মাঠপাড়ার আবুল হোসেনের ছেলে আলোচিত ইয়াবা ব্যবসায়ী মনি ওরফে কসাই মনি। এ ঘটনায় আটক ইমরান হোসেন ছাড়াও অস্ত্রের মালিক কসাই মনিকে আসামি করে থানায় মামলা করা হয়। কোতয়ালি থানা পুলিশের এসআই আমিরুজ্জামান বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে তাদের বিরুদ্ধে মামলাটি করেন। কোতয়ালি থানা পুলিশের ইনসপেক্টর (তদন্ত) সমীর কুমার সরকার জানান, অস্ত্র মামলার পলাতক আসামি মনিকে ধরতে তারা বুধবার রাতে বারান্দীপাড়া মাঠপাড়ায় তার বাড়িতে অভিযান চালিয়েছিলেন। কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি। পুলিশ জানায়, অস্ত্র মামলায় আটক ইমরান হোসেনকে বুধবার আদালতে সোপর্দ করে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানান তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সাইফুল মালেক। বৃহস্পতিবার এ আবেদনের শুনানি শেষে বিচারক তার একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
এদিকে ইমরান হোসেনের কাছে পাওয়া বিদেশি ওই পিস্তলের মালিক কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী মনি ওরফে কসাই মনি এলাকায় একটি শক্তিশালী ইয়াবা সিন্ডিকেট পরিচালনা করে আসছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার একটি সূত্র জানায়, কসাই মনি বারান্দীপাড়া বউ বাজারে মুরগির ব্যবসার আড়ালে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা ট্যাবলেট ব্যবসায়ের সাথে জড়িত। আটক ইমরান হোসেনও তার মাদক ব্যবসায়ের সহযোগী। মুদি ব্যবসার আড়ালে সেও কুখ্যাত কসাই মনির সহযোগী হিসেবে মাদক ব্যবসা করে থাকে। এছাড়া কসাই মনি মাদক সিন্ডিকেটের সাথে রয়েছে বারান্দীপাড়ার পটুয়ার ছেলে রাসেল, মুন্নু ওরফে বাইক মুন্নুর ছেলে দিপু ও আব্দুলাহর ছেলে রাশেদুল। মাদক ব্যবসায়ী কুখ্যাত মনি বারান্দীপাড়া আলোচিত মাদক ব্যবসায়ী জাকিরের অন্যতম সহযোগী। এ কারণে বারান্দীপাড়ার মানুষ তাদের মাদক ব্যবসার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে সাহস পান না। তাছাড়া কেউ মাদক ব্যবসার বিরুদ্ধে সোচ্চার হলে কুখ্যাত কসাই মনি ও তার সহযোগীরা তাকে অস্ত্র উঁচিয়ে ভয় দেখিয়ে থাকে। সূত্র জানায়, কুখ্যাত কসাই মনির স্ত্রী শ্যামলীর সাথে অনেক পুলিশ কর্মকর্তার গভীর সখ্য রয়েছে। যে কারণে ওই মাদক সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান হয় না। প্রায় প্রতিদিন শ্যামলীকে কোতয়ালি থানায় যাতায়াত করতে দেখা যায়। কোন কোন পুলিশ কর্মকর্তার সাথে খোশ গল্প ছাড়াও তিনি এলাকার বিভিন্ন মামলার তদবিরও করে থাকেন। নিজেকে মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী পরিচয় দিয়েও সুবিধা আদায়ের চেষ্টা করেন শ্যামলী। পুলিশের সাথে তার এই সম্পর্কে এলাকার অনেকেই হতবাক হয়েছেন। ফলে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন এলাকার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকে।

ভাগ