ইউক্রেন সংকট: যুদ্ধের প্রশ্নে যা বললেন পুতিন

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ যে কোনও সময় ইউক্রেনে আক্রমণ করবে রাশিয়া। গত কয়েকদিন ধরে অব্যাহতভাবে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমাদেশগুলো এভাবেই সতর্ক বার্তা দিয়ে যাচ্ছে। তাদের দাবি, ইউক্রেনে হামলার জন্য সব প্রস্তুতি সম্পন্ন রাশিয়াণ সেনাদের। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বললেই ঝাপিয়ে পড়বেন তারা। মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) ক্রিমলিনে জার্মান চ্যান্সেলরের সঙ্গে বৈঠক হয় পুতিনের। বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলতে আসেন পুতিন। সেখানে ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধ করার বিষয়ে সরাসরি উত্তর না দিলেও তিনি বলেন, আমরা কি যুদ্ধ চাই নাকি চাই না? অবশ্যই না। আর শুধুমাত্র এ কারণেই আমরা আলোচনার বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়েছি।
তিনি আরও জানিয়েছেন, ইউক্রেন সীমান্ত থেকে কিছু সৈন্য সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে আলোচনার পথ বড় করার জন্য। তবে সংবাদ সম্মেলনে পুতিন দাবি করেছেন, পূর্ব ইউক্রেনের ডনবাসে রাশিয়ার বিচ্ছিন্নতাবাদীদের ওপর গণহত্যা চালানো হচ্ছে। তিনি দ্রুত এটি বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছেন।এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে রাশিয়া যদি ইউক্রেনে হামলা করে তাহলে এ বিষয়টিকে অজুহাত হিসেবে দাঁড় করাবে বলে দাবি করা হচ্ছে। পেন্টাগনের মতে, ডনবাস বা লুহানস্ককে গণহত্যা হচ্ছে এরকম দাবি করে রাশিয়া ইউক্রেনের ওপর হামলা করবে। অপরদিকে, জার্মান চ্যান্সেলরের সঙ্গে বৈঠক শেষে পুতিন সংবাদ সম্মেলনে আরও জানান, ইউক্রেনের ন্যাটোর সদস্য হওয়ার বিষয়টি এখনই সমাধান করতে হবে এ ব্যপারে পুতিন বলেন, তারা বলছে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে ইউক্রেনের ন্যাটোর সদস্য হওয়ার সম্ভাবনা নেই। এটা কি বোঝায়? গত ৩০ বছর ধরে আমাদের বলা হচ্ছে ন্যাটোর পরিধি পূর্ব ইউরোপে বাড়ানো হবে না। আর আজ আমরা দেখছি ন্যাটো আমাদের দোরগোড়ায়। তিনি আরও বোলেণ, আমরা শুনছি ইউক্রেনও ন্যাটোর সদস্য হতে প্রস্তত না। আমরাও জানি এটি। কিন্তু একই সময়ে তারা বলছে ইউক্রেন ন্যাটোতে যোগ দেবে না কিন্তু এটির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। আমাদের জন্য বিষয়টি অনেক দেরি হয়ে যাবে। তাই আমাদের এখনই বা নিকট ভবিষ্যতে এ প্রশ্নের সমাধান খুঁজতে হবে। আমাদের এজন্য আলোচনা করতে হবে।
সূত্র: আল জাজিরা

Lab Scan