ইংল্যান্ডের কাছে হোয়াইটওয়াশ পাকিস্তান

0

স্পোর্টস ডেস্ক॥ টেস্টটা ছিল আজহার আলির শেষ। এরপরই সাদা পোশাকে, লাল বলের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে দিচ্ছেন। ক্যারিয়ারের শেষ টেস্টে জয় দিয়ে বিদায় নিতে পারলেন না পাকিস্তানের এই টপ অর্ডার ব্যাটার। উল্টো ইংল্যান্ডের কাছে বড় ব্যবধানে হারতে হয়েছে পাকিস্তানকে। সে সঙ্গে ঘরের মাঠেই বেন স্টোকসদের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে পাকিস্তান।
চার দিনেই করাচি টেস্টে হেরেছে পাকিস্তান। দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ডের সামনে খুব বড় কোনো লক্ষ্য ছিল না। মাত্র ১৬৭ রানের লক্ষ্য। এই লক্ষ্য পাড়ি দিতে স্টোকসদের ২ উইকেট খরচ করতে হয়েছে এবং লেগেছে কেবল ২৮.১ ওভার। বেন ডাকেটের অপরাজিত অসাধারণ ইনিংসের ওপর ভর করেই ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছে পাকিস্তান। রাওয়ালপিন্ডিতে ৭৪ রানে এবং মুলতানে ২৬ রানে পরাজয়ের পর সিরিজ এমনিতেই হারিয়ে ফেলেছিলো পাকিস্তান। শেষ টেস্টে করাচিতে ৮ উইকেটে হেরে হতে হলো হোয়াইটওয়াশ।
এই টেস্টের শুরুতে ব্যাট করে পাকিস্তান তাদের প্রথম ইনিংসে অলআউট হয় ৩০৪ রানে। বাবর আজম ৭৮, আগা সালমান ৫৬ এবং আজহার আলি ৪৫ রান করেন। জ্যাক লিচ ৪টি ও রেহান আহমেদ ২টি করে উইকেট নেন। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ইংল্যান্ড তাদের প্রথম ইনিংসে ৩৫৪ রান তুলে অলআউট হয়ে যায়। হ্যারি ব্রুক ১১১, বেন ফোকস ৬৪ ও ওলি পোপ ৫১ রান করেন। আবরার আহমেদ ও নৌমান আলি ৪টি করে উইকেট নেন।
প্রথম ইনিংসেই ৫০ রানে পিছিয়ে পড়ে পাকিস্তান। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে তারা অলআউট হয়ে যায় ২১৬ রানে। সুতরাং ইংল্যান্ডের সামনে জয়ের জন্য লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ১৬৭ রানের। বাবর আজম দ্বিতীয় ইনিংসেও হাফ-সেঞ্চুরি করেন। তিনি ৫৪ রান করে আউট হন। এছাড়া সউদ শাকিল ৫৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন। অভিষেক হওয়া রেহান আহমেদ ৫টি ও জ্যাক লিচ ৩টি উইকেট নেন। ইংল্যান্ড শেষ ইনিংসে ঝড়ের গতিতে রান তুলে চতুর্থ দিনের প্রথম সেশনেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায়। ২৮.১ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১৭০ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়। বেন ডাকেট ৮২ রান করে অপরাজিত থাকেন। ৪১ রান করেন জ্যাক ক্রাউলি। রেহান আহমেদ ১০ রান করে সাজঘরে ফেরেন। বেন স্টোকস অপরাজিত থাকেন ব্যক্তিগত ৩৫ রানে। ২টি উইকেট নেন আবরার আহমেদ।
প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত শতরানের সুবাদে ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন হ্যারি ব্রুক। তিন টেস্টের ৫টি ইনিংসে ৩টি শতরান ও ১টি অর্ধশতরান-সহ ৪৬৮ রান সংগ্রহ করে সিরিজের সেরা ক্রিকেটারের পুরস্কারও জেতেন হ্যারি।

 

Lab Scan