আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে বিএনপি

লোকসমাজ ডেস্ক॥ ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে বিএনপি নেতাকর্মীরা। করোনার সঙ্গে এ দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্তদের মুখে খাবার তুলে দিতে খাদ্যসামগ্রীর পাশাপাশি আর্থিক সহযোগিতা করছে দলের নেতাকর্মীরা। বিএনপি নেতারা জানান, করোনার মহামারির মধ্যে আম্ফানে অনেকেরই অনেকই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কারো বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। কারো মাছের ঘের ভেসে গেছে। ফসলের ক্ষতি হয়েছে। করোনার কারণে আগে থেকেই মানুষ বিপাকে রয়েছে। আর আম্ফানে দুর্গত এলাকাগুলোর মানুষের কষ্ট অনেক বেড়েছে।
তারা বলছেন- বিএনপি হচ্ছে গণমানুষের দল। সব সময়ই তারা মানুষের কথা চিন্তা করে। মানুষের পাশে থাকে। করোনার শুরু থেকে যেমন মানুষের পাশে থেকে আসছে। আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশেও নেতাকর্মীরা সেই একইভাবে দাঁড়িয়ে সহযোগিতা করছে। দলটির একাধিক সিনিয়র নেতা জানান, যার যার নির্বাচনী এলাকা হিসেবে একেক জন তার এলাকায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। চাল, ডাল, তেল, চিনিসহ বিভিন্ন ধরনের খাদ্য সামগ্রী দিচ্ছেন। সামনেই ঈদ, সে বিষয়টি মাথায় রেখে ঈদ উপহার দেওয়া হচ্ছে। সেই সঙ্গে করোনা সংক্রমণের বিষয়টি মাথায় রেখে সামাজিক দূরত্ব মেনে এসব খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হচ্ছে। নেতারা বলেন, শুধু যে এমপি প্রার্থীরা দিচ্ছেন তা নয়, জেলা উপজেলা পর্যায়ে ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দলসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা যে যার সামর্থ অনুযায়ী সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। কেউ খাবার দিচ্ছেন। কেউ আর্থিক সহযোগিতা করছেন। কেউ ঘর করে দিচ্ছেন।
বাগেরহাট জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ড. শেখ ফরিদুল ইসলাম বলেন, আম্ফানের সময় রামপাল উপজেলায় যারা আশ্রয় কেন্দ্রে ছিলেন তাদের জন্য খিচুড়ি রান্না করে সরবরাহ করা হয়েছে। মোংলা উপজেলারও কয়েকটি আশ্রয় কেন্দ্রে দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, মোংলায় আমাদের বুড়িমারী ৩ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি আকরাম কাজীর বসত ঘরটি নদীগর্ভে চলে গেছে। সাতটি ছাগল ছিল, তাও গেছে। তাকে আপাতত থাকা এবং তার পরিবারের খাদ্যের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আমি তাকে নতুন ঘর করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছি। কয়েকটা দিন গেলেই পরিস্থিতি বুঝে তাকে নতুন ঘর করে দেওয়া হবে।
এ প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরি বলেন, করোনাভাইরাসের শুরু থেকেই আমরা মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। ১ কোটি ৩০ লাখ মানুষের কাছে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিয়েছি। আমাদের চিকিৎসকরা এবং জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে পিপিই পৌঁছে দিয়েছে। তিনি বলেন, এতো নিপিড়িত নির্যাতিত হওয়ার পরে কোটি কোটি মানুষের দ্বারে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়া বিএনপি ছাড়া কোনো রাজনৈতিক দলের নজিরে নেই। আমরা তো আমাদের দায়িত্ব পালন করবোই, করছিও। আমরা তো সরকারে নাই। করোনার জন্যও যেভাবে করছি, আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্যও সেই একইভাবে করা হচ্ছে। বিএনপি জনগণের দল। যে কোনো দুর্যোগে দুর্দশায় আমার জনগণের পাশে থাকি। যতই দুঃখে থাকুক কষ্টে থাকুক বিএনপি নেতা কর্মীরা মানুষের পাশে থাকে। আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশেও সেভাবে থাকছে।

ভাগ