আন্দোলন করার আগেই আপনারা ভয় পেয়ে গেছেন, কাদেরকে মির্জা আব্বাস

লোকসমাজ ডেস্ক ॥ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ্য করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, বিএনপি আন্দোলন করার আগেই তো আপনারা ভয় পেয়ে গেছেন। কখন কি হবে বুঝতে পারছেন না। সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বরিশাল গৌরনদী উপজেলা ও পৌর বিএনপি এবং আগৈলঝাড়া উপজেলা বিএনপির উদ্যোগে দলের কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমানের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
বিএনপির কর্মীদেরকে গ্রেফতারের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই মন্তব্য করে আব্বাস বলেন, আমাদের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে এখন মামলার সংখ্যা ২৬ লাখ নয়, ৩৫ লাখ। অর্থাৎ আমাদের ৩৫ লাখ নেতাকর্মী গ্রেফতার হওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন। তাদের বাবা-মা, ভাই-বোনেরাও তৈরি রয়েছেন। সুতরাং আওয়ামী লীগের সতর্ক হওয়া উচিত। বাংলাদেশের কোটি কোটি বিএনপির সমর্থক এবং জনগণ ক্ষিপ্ত হয়ে রয়েছে। ‘আন্দোলনের নামে অরাজনৈতিকভাবে সহিংসতার পথে গেলে বিএনপিকে দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে’- আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের জবাবে বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, ‘বিএনপি আন্দোলন করার আগেই তো আপনারা ভয় পেয়ে গেছেন, গ্রেফতার করা শুরু করে দিয়েছেন। আপনারা যে দাঁতভাঙা জবাব দেবেন আপনাদের কি কামড় দেয়ার সেই দাঁতগুলো আছে? আমি চ্যালেঞ্জ করে বলে দিতে চাই- আওয়ামী লীগের ছোট্ট একটি মটরশুঁটি কামড় দেয়ার যোগ্যতাও নাই এখন।’
মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আওয়ামী লীগের পেটোয়া পুলিশ-র‌্যাব-বিজিবি ছাড়া এক মিনিটও ক্ষমতায় থাকার ক্ষমতা নেই তাদের। পেটোয়া বাহিনী দিয়ে ক্ষমতায় থাকার ক্ষমতাও ফুরিয়ে আসছে। অতএব বেশি কথা বলা ঠিক নয় কাদের সাহেব। গ্রেফতারের ভয়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা গর্তে লুকিয়ে থাকে না। আমাদের ভয়ের কিছু নাই।’ আব্বাস বলেন, ‘শেখ মুজিবের আমলে যে আওয়ামী ছিল সেই আওয়ামী লীগের কথা এখন আপনারা ভুলে যান, সেই আওয়ামী লীগকে আপনারা অনেক আগেই কবর দিয়ে দিয়েছেন। সেই আওয়ামী লীগকে আজকের আওয়ামী লীগ খেয়ে ফেলেছে।’ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। তার সঙ্গে এখন আর দেখা করতেও দেয়া হচ্ছে না’। তিনি সুপ্রিম কোর্টে বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থার সঠিক তথ্য তুলে ধরতে মেডিকেল বোর্ডের প্রতি আহ্বান জানান। এ সময় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিমা রহমান, যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, পল্লী উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট গৌতম চক্রবর্তী ও কৃষকদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য লায়ন মিয়া মোহাম্মদ আনোয়ার প্রমুখ।

ভাগ