অলরাউন্ড সাকিবে আশা বাঁচল বাংলাদেশের

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ রাজার মতো ফেরা হয়তো একেই বলে। ব্যাটে-বলে অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ম্যাচসেরা হলেন সাকিব আল হাসান। সাকিবের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ওমানকে ২৬ রানে হারিয়ে সুপার টুয়েলভে ওঠার আশা বেঁচে রইল বাংলাদেশের। মাসকাটের আল আমিরাত স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া বাংলাদেশ প্রথম ৫ ওভারের মধ্যেই ২১ রানে হারায় দুই উইকেট। চার নম্বরে এসে ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হন সাকিব। ওপেনার নাঈম শেখের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে ৮০ রানের জুটি গড়ে প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দেন তিনি। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে যে ধীরগতির ব্যাটিংয়ের জন্য সমালোচিত হয়েছিলেন সাকিব, আজ তার ব্যাটিং ছিল পুরোপুরি ভিন্ন। ২৯ বলে ৬টি চারে ৪২ রানের এক ঝড়ো ইনিংস খেলেন এই বাঁ-হাতি অলরাউন্ডার। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বোলিংয়েও সাকিব ছিলেন দুর্দান্ত। ১৩তম ওভারের প্রথম বলে জতিন্দর সিংয়ের কাছে চার খেয়ে বসেন। তবে ওই ওভারের শেষ বলে থিতু হয়ে যাওয়া ওপেনার জতিন্দরকে ডিপ স্কয়ার লেগে লিটন দাসের ক্যাচ বানিয়ে সাজঘরে ফিরিয়ে স্বাগতিকদের জয়ের সমীকরণ কঠিন করে দেন সাকিব। এরপর ১৭তম ওভারে নিজের শেষ ওভারটিতে দেন টানা জোড়া ধাক্কা। তাও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ-সাকিব জুটির সমন্বয়ে, দুবারই রিয়াদ ক্যাচ ধরেছেন একই জায়গা লং-অফে দাঁড়িয়ে। পার্থক্য শুধু আয়ান খান বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান আর উইকেটরক্ষক নাসিম খুশি ডানহাতি ব্যাটসম্যান। শেষ পর্যন্ত তার ফিগার দাঁড়াল ৪-০-২৮-৩। বোলার সাকিব দুর্দান্ত খেললেও ব্যাটসম্যান সাকিবকে যেন খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। আজ এমন অলরাউন্ড পারফরম্যান্স করে ভক্তরা হয়তো একটু স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পারে এই ভেবে, ‘যাক, ব্যাটার এবং বোলার সাকিবকে অবশেষে একসঙ্গে পাওয়া গেল!’ এ নিয়ে টি-টোয়েন্টিতে অষ্টমবার ম্যাচ সেরা হলেন সাকিব। সে সঙ্গে সব মিলিয়ে ৩৭তমবার সেরার পুরস্কার জিতলেন তিনি।

Lab Scan