অভয়নগরে যুবককে হত্যার অভিযোগে আদালতে মামলা

0

 

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরের অভয়নগর উপজেলার প্রেমবাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এলাকায় কনক সর্দার (২০) নামে এক যুবককে শ্বাসরোধে এবং অ্যাসিড ও আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগে রোববার আদালতে মামলা হয়েছে। ২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫ জনকে আসামি করে আদালতে মামলাটি করেছেন নিহতের মামা কবির হোসেন। তিনি সদর উপজেলার ডাকাতিয়া গ্রামের মৃত আনছার বিশ্বাসের ছেলে। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মঞ্জুরুল ইসলাম অভিযোগ বিষয়ে থানায় কোনো মামলা আছে কি-না এ সংক্রান্তে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য অভয়নগর থানা পুলিশের ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন। মামলার আসামিরা হলেন, অভয়নগর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের মৃত খালেক সর্দারের ছেলে মাসুম সর্দার (৩৫) ও সেলিমের ছেলে সুজন (২০)।
মামলায় বাদি কবির হোসেন উল্লেখ করেছেন, আসামি মাসুমের মোবাইল ফোনের টাওয়ারের ব্যাটারি চুরি করার ঘটনা দেখে ফেলেছিলেন কনক। বিষয়টি তিনি এলাকাবাসীকে জানিয়ে দিলে একজন জনপ্রতিনিধি মাসুমকে ধরে মারধর এবং জরিমানা করেন। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে কনককে হত্যার পরিকল্পনা করেন মাসুম। গত ২৪ নভেম্বর রাত ১০টার দিকে বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা দেখার জন্য কনক বাড়ি থেকে বেরিয়ে চেঙ্গুটিয়া বাজারে যান। খেলা চলাকালে রাত আড়াইটার দিকে বাড়ি যাওয়ার কথা বলে কনককে মোটরসাইকেলে উঠিয়ে রওনা দেন আসামি মাসুম। কিন্তু বাড়ি না গিয়ে কনককে প্রেমবাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে পূর্ব পরিকল্পিতকভাবে আগে থেকে অপেক্ষা করছিলেন অপর আসামি সুজনসহ অজ্ঞাতনামারা। তারা কনককের নাক, কান ও মুখের ভেতর মাটি ঢুকিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। এছাড়া অ্যাসিড ও আগুন দিয়ে তার বুক ও পেট পুড়িয়ে দেয়া হয়। এরপর লাশটি একটি বৈদ্যুতিক খাম্বার সাথে বেঁধে রেখে পাশে একটি তার কাটা কার্টার ফেলে রাখেন আসামিরা। যাতে লোকজন মনে করেন বৈদ্যুতিক তার চুরি করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তার মৃত্যু হয়েছে।

 

Lab Scan