অভয়নগরে গাছি সম্মেলন

0

 

নজরুল ইসলাম মল্লিক, অভয়নগর (যশোর)॥ খেজুরের গুড়ের ঐতিহ্য ধরে রাখতে অভয়নগরে খেজুর গাছিদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে ধোপাদী উলরবটতলা এলাকায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে খেজুর গাছি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার কেএম আবু নওশাদের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষি অফিসার লাভলী খাতুন, যুব বিষয়ক কর্মকর্তা আন্জুমনোয়ারা, উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা প্রশান্তি মল্লিক, নওয়াপাড়া প্রেসক্লাবের দফতর সম্পাদক শাহিন আহমেদ, সদস্য জাকির হোসেন হৃদয়, গাছি মাহবুব ইসলাম, মিজানুর রহমান, গাছ মালিক হেলাল উদ্দিন প্রমুখ।
খেজর গাছি মাহবুব ইসলাম, মিজানুর রহমান বলেন, আমরা প্রতিবছর এ সময়ে খেজুর গাছ কেটে থাকি। শীতকালে খেজুরের রস পাওয়া যায়। গাছির সংখ্যা এখন কম। এই গ্রামে ৩ জন গাছি আছি। প্রতি ভাড় রস ২৫০/ ৩০০ টাকায় বিক্রি করি। তবে গাছির সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে। গাছিরা অন্য পেশায় ঝুঁকে পড়েছে।
উপজেলা কৃষি অফিসার লাভলী খাতুন জানান, এ এলাকায় অনেক খেজুঁর গাছ আছে। তবে গাছির সংখ্যা কম। গাছিদের উদ্বুদ্ধ করতে খেজুর গাছি সম্মেলন করছি। যাতে যশোরের অভয়নগরে এই ঐতিহ্য ধরে রাখা যায়। এছাড়াও খেজুরের বীজ সংগ্রহ করে প্রত্যকটা সড়কে লাগানো হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার কেএম আবু নওশাদ বলেন, এই অঞ্চলের ঐতিহ্য খেজুরের রস ও খেজুরের গুড়। সেই ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনতে ও খাঁটি খেজুর গুড় তৈরিতে এই খেজুর গাছি সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। যশোর জেলার অভয়নগরে প্রায় ১ লাখ ৪১ হাজার ১৫০ টি খেজুর গাছ আছে। খেজুরের চারা রোপণের পাঁচ বছর পর রস আহরণের জন্যে গাছ কাটা শুরু হয়। একটি গাছ থেকে ১৫-২০ বছর পর্যন্ত রস সংগ্রহ করা যায়। বর্তমানে প্রায় ৫০ হাজার গাছ থেকে খেজুরের রস সংগ্রহ করা হচ্ছে। গাছির অভাবে এসব গাছ থেকে রস সংগ্রহ করা সম্ভব হয় না। উপজেলায় বর্তমানে পেশাদার হিসেবে মাত্র ৬৯১ জন গাছি রয়েছেন।

 

 

 

Lab Scan