অবরোধের শেষ দিনে যশোরে সড়ক মহাসড়কে বিএনপির বিক্ষোভ, আটক ৫

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপি ও সমমনাদলের ডাকা টানা তিনদিনের অবরোধের শেষ দিনে যশোরে বিভিন্ন সড়ক ও মহাসড়কে বিএনপি নেতাকর্মীরা অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেছেন। যশোর- ঝিনাইদহ মহাসড়কে বিক্ষোভ শুরুর আগে পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে দুই বিএনপি নেতা ও এক যুবদল নেতাকে আটক করেছে। এছাড়া ঝিকরগাছা ও মণিরামপুর এলাকা থেকে আরও দুইজনকে আটক করে পুলিশ। যশোর-ঝিনাইদহ মহাসড়কে অবরোধের সময় বিএনপি নেতাকর্মীদের কয়েকটি মোটরসাইকেল পুলিশ নিয়ে যায় বলে দলটির নেতারা জানিয়েছেন।
শেষ দিনেও যশোর থেকে দূরপাল্লার কোন যাত্রীবাহী বাস ছেড়ে যায়নি। সীমিত পরিসরে থ্রি-হুইলার ও ইজিবাইক যাত্রী নিয়ে চলাচল করলেও যাত্রীর সংখ্যা ছিলো কম। যাত্রী না থাকায় যশোর বাস টার্মিনাল থেকে কোন আঞ্চলিক রুটে নির্ধারিত সময়ে কোন বাস ছাড়েনি।
অবরোধের কারণে বৃহস্পতিবার ভোর থেকেই যশোর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে নির্ধারিত সময়ে কোন বাস ছেড়ে যায়নি বলে পরিবহন শ্রমিকরা জানান। বাসস্ট্যান্ডগুলোতে যাত্রীদেরও তেমন উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়নি। পরিবহন শ্রমিকরা বলছেন, যাত্রী না থাকায় তারা বাস ছাড়তে পারছেন না। বাস ছাড়লেও লোকসান গুণতে হচ্ছে তাদের।
এদিকে বিএনপি নেতাকর্মীরা বিক্ষিপ্তভাবে মিছিল করেছেন বিভিন্ন সড়কে। সকালে প্রথমে যশোর আর এন রোড এলাকায় জেলা ছাত্রদলের দলের একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। একই সময় জেলরোড বেলতলায় নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে আরেকটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। যশোর -বেনাপোল মহাসড়কের চাঁচড়া বিদ্যুৎ অফিসের সামনে জেলা যুবদলের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিল থেকে সরকারের পদত্যাগ, খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি জানিয়ে নানা স্লোগান দেন নেতাকর্মীরা।
এদিকে সকাল সাতটার দিকে যশোর-ঝিনাদই মহাসড়কে অবরোধকারীরা অবস্থান নিলে সেখানে পুলিশ হানা দিয়ে হৈবতপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান, চুড়ামনকাটি ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান সিনিয়র সহসভাপতি আবু তালেব ও কাশিমপুর ইউনিয়ন যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক সোহেল রানাকে গ্রেফতার করে। এ সময় পুলিশ লাঠিচার্জ করে নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দিয়ে সেখান থেকে কয়েকটি মোটরসাইকেল নিয়ে যায়।
জেলার মণিরামপুর উপজেলার মশ্মিমনগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ডা. আব্দুর রশিদ ও ঝিকরগাছার পানিসারা ইউনিয়ন বিএনপি নেতা রবিউল ইসলাম রবিকে আটক করে বলে বিএনপি নেতারা জানান।
এদিকে অবরোধ দমনে পুলিশের পাশাপাশি সড়কে র‌্যাবের তৎপরতা ছিলো অন্যান্য দিনের চেয়ে চোখে পড়ার মতো। র‌্যাব-৬ যশোর ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন জানান, অবরোধকারীরা যশোরে কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে পারেনি। সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার স্বার্থে র‌্যাবসহ সকল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করেছে।
বিএনপির খুলনা বিভাগীয় ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত জানান, শান্তিপূর্ণ অবরোধের শেষ দিনেও পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করেছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসী, পুলিশ বাহিনীর সব ধরনের তৎপরতা সত্ত্বেও মুক্তিকামী জনতা বিএনপি আহূত অবরোধে সাড়া দিয়েছে। যা আগামী দিনগুলোতেও আরও বেগবান হবে বলে তিনি দাবি করেন।

Lab Scan